এ খেলা ভাঙার নয়, জীবন গড়ে তোলার !

সাংবাদিক

‘খেলা ভাঙার খেলা’ – একটি মিষ্টি প্রেমের গল্প। বাঙালির জীবন কিছুকাল এইমহীন থাকতে পারে, তবু প্রেমহীন নয়! প্রকৃতির নিয়ম মেনে শীত, গ্রীষ্ম, বর্ষার মত বসন্তও আসে মানুষের জীবনে। তা কখনো ক্ষণস্থায়ী আবার কখনো জীবনভর বাঁচার অনুপ্রেরণা যোগায়। এমনই এক বসন্তের সন্ধান দিচ্ছে এস.ডি.পি প্রোডাকশনস-এর শর্টফিল্ম ‘খেলা ভাঙার খেলা‘। সম্প্রতি আমারা মিউজিক নামে একটি ইউটিউব চ্যানেলে মুক্তি পেল শর্ট ফিল্মটি। ছবির পরিচালনা শুভম দত্তের।

লেখক সাম্যের সাথে উঠতি সাংবাদিক অঙ্গনার সম্পর্কের টানাপোড়েন এই গল্পের কেন্দ্রবিন্দু। ছবিটির গল্প নিয়ে এককথায় বলা চলে – “ওল্ড ওয়াইন ইন আ নিউ বটল”। সংলাপ রচনায় হিউমারের ব্যবহার চেনা কাহিনিকেও আকর্ষণীয় করে তুলেছে। ব্যাচেলার্স লাইফ ও কন্টেম্পরারি বিষয়ের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে কাহিনির সংলাপ লেখা হয়েছে। কাহিনির ইমোশনাল টাচও বেশ ভালো। তবে বাণিজ্যিক করে তুলতে গিয়ে কিছু ক্ষেত্রে গতে বাঁধা ছক অনুসরণ করেছেন ছবির নির্মাতারা। কিছু ক্ষেত্রে সংলাপও অতিরঞ্জিত মনে হয়েছে।

গল্পের চরিত্রগুলো বেশ ইন্টারেস্টিং। সাম্যের চরিত্রে অরুণাভর কাছে আরো ভালো করার অবকাশ ছিল। তবে অঙ্গনা ওরফে অরুন্ধতী তার সাংবাদিক চরিত্র দৃশ্যায়নে যথেষ্ট সাবলীল। ছবিতে আরেকটি চরিত্রে রয়েছেন যুধাজিৎ সরকার। প্রবাসী বাঙালি চরিত্রটি পেশায় এঞ্জিনিয়ার। সত্যজিতে নয়, নোলানে বিশ্বাসী সে। বাঙালির নস্টালজিয়া ‘পথের পাঁচালী’র নাম পর্যন্ত শোনেনি সে।

ছবিতে একটি মাত্র গান ব্যবহার করা হয়েছে। ছবির সিনেমাটোগ্রাফিও চোখে পড়ার মতো। ছবির নামকরণ ও বিষয়বস্তুর সংযোগ লক্ষণীয়। জীবনযুদ্ধে ভাঙাগড়ার খেলা তুলে ধরতেই এস.ডি.পি প্রোডাকশনের এই প্রয়াস।