Home এডিটর'স চয়েস মহালয়ার সেরা পাঁচ ' মহিষাসুরমর্দিনী '
রোম্যান্টিক

বন্ধুত্বের কিছু সিনেমা, পর্ব ১

রোম্যান্টিক বা থ্রিলার হরর সিনেমা আমরা প্রায় সবাই দেখে থাকি৷ তার মধ্যেও রয়েছে বন্ধুত্বের কিছু সিনেমা। আজ সেই বন্ধুত্ব নিয়েই কিছু ভালো সিনেমার সন্ধান...
কুমার

যে গান গাইতে টাকা নেননি কিশোর কুমার !

কিশোর কুমার। যিনি আজ বেঁচে থাকলে নব্বই বছরের চিরকিশোর হতেন।আজ বলব এমন এক গল্প যা মন কেমন করাবেই। কিশোর কুমার পেমেন্ট ব্যতীত কোন গান...
অঞ্জন চৌধুরী

বাংলা ছবির দু:সময়ের অন্নদাতা ! ব্রাত্য বাংলা সিনেমার একশো বছরের ইতিহাসে !

যাঁকে কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসব গুরুদক্ষিণা টুকুও দিলনা। তিনি বাংলা ছবিকে বউ সিরিজ উপহার দিয়ে ডুবিয়ে দিয়ে গিছেন আজকালকার জ্ঞানপাপী দুটো শর্ট ফিল্ম বানানো পরিচালকরা...

মহালয়ার সেরা পাঁচ ‘ মহিষাসুরমর্দিনী ‘

আকাশবাণী কলকাতার ‘মহিষাসুরমর্দিনী ‘র পর টেলিভিশনে ‘মহিষাসুরমর্দিনী’ সবার কাছেই ভালোবাসার। কিন্তু এখন অনেক চ্যানেল হওয়া সত্ত্বেও টিভির মহালয়া দর্শকের বিরক্তি উদ্রেক করে। সেই মেগার নায়িকারা যাঁদের প্রত্যহ দেখে তারাই দুর্গা আর নইলে বেমানান ছবির নায়িকারা দুর্গা। সবচেয়ে উদ্রেককর পুরাণ বিকৃত অনুষ্ঠান। কিন্তু এইসব দৃশ্যদুষনের মধ্যেও কিছু টেলিভিশনের দুর্গা সবার প্রিয় আজও। যাঁদের মানুষ ভোলেনি ভুলবেনা। সেইরকম পাঁচ দুর্গাকে আমরা বেছে নিলাম।

লিখছেন শুভদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়

দেবীপক্ষ সূচনার পূর্বদিন মহালয়া। বনেদী বাড়িতে মহলয়ার দিনে আগে আগমণী গান গেয়ে দেবীপক্ষর বার্তা দেওয়া হত। অন্যদিকে কুমোরটুলি থেকে বাড়ির পুজোয় চলে আজও দেবীর চক্ষুদান। মহালয়ার আবহে গঙ্গার ঘাটে পূর্বপুরুষকে তর্পণ করে জল নিবেদন করা হয়। আর এই ভোরের সূচনা হয় আকাশবাণীর ‘মহিষাসুরমর্দিনী’ প্রভাতীনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে। কিন্তু পরবর্তী কালে টেলিভিশনে চলে আসে ‘মহিষাসুরমর্দিনী’ অনুষ্ঠান। আমরা বেছে নেব সেরা পঞ্চ দুর্গা টেলিভিশন যুগের শুরু থেকে আজ অব্দি। টেলিভিশনে মহালয়া করার প্রচেষ্টা শুরু হয় আশির দশকের শেষ দিকে। রেডিও তে বীরেন্দ্র কৃষ্ণর ভদ্রর স্তোত্রপাঠ শুনে বাঙালী খুলত সাদা কালো টিভি। কলকাতা দূরদর্শনে সাদা কালোতেই হত মহলয়ায় দুর্গার মহিষাসুর বধ।

প্রথম দুর্গা – সংযুক্তা বন্দ্যোপাধ্যায়

১৯৯৪এ দূরদর্শন বানালো যুগান্তকারী ‘মহিষাসুরমর্দিনী’ অনুষ্ঠান কালারে।দুর্গার ভূমিকায় সংযুক্তা বন্দ্যোপাধ্যায়। যিনি ছিলেন কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্রী। পড়াশুনোর পাশাপাশি সংযুক্তা কলামন্ডলমে গুরু গোবিন্দন কুট্টির কাছে শিখতেন নাচ। গুরুজির থেকেই ফোন পেয়ে হাজির হলেন সংযুক্তা। দূরদর্শনের দুর্গা রূপে অনেক ছাত্রীর থেকে সংযুক্তা নির্বাচন হলেন। এরপর ইতিহাস। ঐ ‘মহিষাসুরমর্দিনী’ আইকনিক। জীবন্ত দুর্গা রূপে আজও সংযুক্তা ব্যানার্জ্জী ঘরেঘরে জনপ্রিয়। কেউ সামনাসামনি সংযুক্তাকে দেখলে বয়স্ক মানুষরাও সংযুক্তাকে প্রণাম করতে চেয়েছেন মা দুর্গা দেবী ভেবে। পরপর অনেক বছর কলকাতা দূরদর্শনের জন্য মহালয়া অনুষ্ঠানে দুর্গা সাজেন সংযুক্তা। দেবী দুর্গা,মহিষাসুরমর্দিনী,অসুর দলনী দেবী দুর্গা,দনুজ দলনী দুর্গা এই সব কটি বছরের অনুষ্ঠানেই দুর্গা হন সংযুক্তা। হৈমন্তী শুক্লা,ইন্দ্রাণী সেনরা গান করেন। আজও যতজনই দুর্গা সাজুন বাঙালীর মনের দুর্গা সেই সংযুক্তা ব্যানার্জ্জী। সংযুক্তা এখন বিবাহসূত্রে টরেন্টো নিবাসী এক পুত্রের জননী। টরেন্টো কানাডা সহ বিভিন্ন বিদেশে দুর্গা এখনও হন পারফর্ম করেন তিনি। আছে নিজের ডান্স প্রতিষ্ঠান অজস্র ছাত্রছাত্রী। কলকাতা এলে করে যান এখানেও পারফর্ম। এখনও কোনো চ্যানেল চাইলে টি আর পির সঙ্গে আপোষ না করে পুরাণ অবিকৃত চিত্রনাট্য হলেই সংযুক্তা আবার টিভিতে দুর্গা হতে চান।

দ্বিতীয় দুর্গা – দেবশ্রী রায়

দেবশ্রী রায় দুর্গা হবার অনেক আগেই সুপারস্টার জাতীয় পুরস্কার প্রাপ্তা নৃত্যশিল্পী নায়িকা। যে আনকোরা কেউ ছিলনা দুর্গা হতে।সকলের চেনা মুখ দেবশ্রী। দেবশ্রী রায় দুর্গা হোক এটা দেবশ্রী ফ্যানরা সবাই চাইত। সুচিত্রা সেনের পর টলিউডে সবথেকে উদযাপিত নায়িকা দেবশ্রী রায়। দেবশ্রীর নিজের আছে নটরাজ ট্রুপ। তাই দেবশ্রী যখন নেন এই দুর্গা সাজার অফার দর্শকদের প্রতিক্ষীত অপেক্ষা পূরণ হয়। দেবশ্রী তাঁর আগেই সেজেছেন ‘স্বামী বিবেকানন্দ’ ছবিতে সারদা মা।
ইটিভি বাংলা থেকে এবিপি আনন্দে দুর্গা হয়েছেন দেবশ্রী রায়। দেবশ্রী একজন পরিপূর্ণ নায়িকা,বিখ্যাত নৃত্যশিল্পী তো সে দুর্গা হিসেবে পারফেক্ট , দর্শকের ভালোবাসা তার রেসপন্স।

 

মহিষাসুরমর্দিনীতৃতীয় দুর্গা – হেমা মালিনী

হেমা মালিনী তামাম দর্শকের ড্রিম গার্ল থেকে ভারতে দেবী দুর্গা রূপে অবাঙালীদের মধ্যে বিশাল জনপ্রিয়। স্টেজ পারফর্মে হেমাজী দেবী দুর্গার সব রূপে বিখ্যাত। সেই সূত্র ধরেই কলকাতা দূরদর্শন হেমা মালিনীকে দুর্গা করে যা এক যুগান্তকারী ঘটনা বাংলা টেলিভিশনে। এই অনুষ্ঠান ডিডি ন্যাশানালে সমগ্র ভারতে সম্প্রচারিত হয় নব্বই দশকের শেষভাগে।চতুর্থ দুর্গা – অপরাজিতা আঢ্য

অপরাজিতা আঢ্য আগে কিন্তু একজন নৃত্যশিল্পী হয়ে নাচকেই ভালোবাসেন। কিন্তু অভিনেত্রী রূপে জনপ্রিয় হন। ছোটো থেকে নাচ শেখার জন্য মেয়ে বলে পাড়ায় পরিবারে হেনস্থা হন। সঙ্গে ভরসা দেন শুধু মা। যখন অপরাজিতা মা দুর্গা হন কলকাতা দূরদর্শনে সেদিন সব লাঞ্ছনাকে যেন বধ করেন অপরাজিতা হয়ে। দুর্গার আরেক নাম তো অপরাজিতা।

পঞ্চম দুর্গা – শ্রীনন্দা শংকর

তনুশ্রী শংকর তনয়া শ্রীনন্দা পড়াশুনোর পাশাপাশি নাচ ও বিদেশ থেকে মেক আপের উপর পড়াশুনো করেন। দেশে ফিরে নিজের পৃথুলা চেহারাকে ঝরিয়ে স্লিম হয়ে সবার চোখে পড়েন। মার তালিম নিয়ে পারফর্ম করতেন। যখন স্টার জলসা শ্রীনন্দা কে দুর্গা নির্বাচিত করে তখন সেই দুর্গা যেন অনেকদিন পর খাঁটি দুর্গা পেল টেলিভিশনের দর্শক। নিত্যদেখা সিরিয়ালের মুখ কি সিনেমার নায়িকাদের চেয়ে শ্রীনন্দা এখনও অব্দি সেরা দুর্গা।

মহিষাসুরমর্দিনী

মানালি

MUST READ

মহালয়ার সেরা পাঁচ ‘ মহিষাসুরমর্দিনী ‘

আকাশবাণী কলকাতার 'মহিষাসুরমর্দিনী 'র পর টেলিভিশনে 'মহিষাসুরমর্দিনী' সবার কাছেই ভালোবাসার। কিন্তু এখন অনেক চ্যানেল হওয়া সত্ত্বেও টিভির মহালয়া দর্শকের বিরক্তি উদ্রেক করে। সেই মেগার...

পুজোর সেরা পুরুষ কে ? এবার পুজোয় অভিনব উৎসব !

পুরুষ। পুরুষ যেন পড়ে পাওয়া চোদ্দ আনা। নারী দিবস নিয়ে হৈচৈ। নারী দিবসের দরকার তো আছেই কিন্তু পুরুষ দিবস কবে কোনদিন আমরা কজন জানি?...

এবার মহালয়াতেই অকাল বোধন !

দেবী দুর্গার ত্রিনয়ন, যার জ্যোতিতে আলোকিত বিশ্ব। সৃষ্ট প্রাণ। আমরা দেবী দুর্গাকে চোখে দেখিনি দেখিনা। কিন্তু দুর্গা মানে এক শক্তি। নারী শক্তি। ধরিত্রীতে সকল...

নটবর ১০০তেও নটআউট !

বাবা সতু রায় ছিলেন নির্বাক যুগের বিখ্যাত অভিনেতা। কিন্তু তাতে ছেলের বিশেষ কিছু সুবিধে হয়নি। তাঁর জন্ম বরিশালে। বাবা পরে চলে আসেন কলকাতায়। শেষে...