জানেন কি দেব’র থেকে সিনেমার অফার পেয়েছিলেন ইনি!

সোহীনি সম্প্রতি টলি সুপার্স্টার "দেব" এর কাছ থেকে একটা কমার্শিয়াল সিনেমার অফার পেয়েও স-সন্মানে ফিরিয়ে দিয়েছেন! কারণ সেটা সাউথ ইন্ডিয়ান সিনেমার নকল। তবে দেব ওর "না" বলাটাকে যথেষ্টি সন্মান দিয়েছেন।

অভিনেত্রী সোহিনী সরকার এখন টলিপাড়ার একজন বহুল চর্চিত মুখ হয়ে উঠেছেন। নতুন বছরটা তার শুরু হল মজার প্রেমের ছবি “বিবাহ ডায়েরিস” এর মধ্যে দিয়ে। এই ছবিতে তিনিই নায়িকা, আবার পরিচালক অরিন্দম শীলের আগামী সিনেমা “দুর্গা সহায়”-য়েও তার চরিত্র টাকে কেন্দ্র করেই গল্প এগিয়েছে। এর আগে ফড়িং, মণিহারা-র মত সিনেমা গুলোতে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করলেও সেভাবে ফোকাস তিনি পাননি। কিন্তু মৈনাক ভৌমিক, অরিন্দম শীলের মত বক্স অফিসের সফল পরিচালকদের সিনেমায় লিড রোলে কাজ করবার ব্যাপারটা তাকে আজকাল অনেক বেশি প্রচারের আলোয় আসতে সাহায্য করেছে।

নিজেকে সব সময় নায়িকা অধিক একজন সফল অভিনেত্রী হিসেবেই দেখতে পছন্দ করেন তিনি। কোনো চরিত্রে অভিনয় করবার আগে সোহীনি সব সময় ভালভাবে বুঝে নেন যে তার চরিত্রটা কতটা গ্রহনযোগ্য। দর্শকরা তাকে সেই চরিত্রে কতটা পছন্দ করবেন! সেই ছবিটার মধ্যে কতখানি বাঙালীয়ানা ব্যাপারটা আছে। সাউথ ইন্ডিয়ান সিনেমার কপি-পেস্ট হবে বাংলা সিনেমা! এই বিষয়টাকে আর যেকেউ যেভাবেই দেখুক না কেন তিনি অন্তত পছন্দ করেন না মোটেই। আর এই ব্যাপারটাই তাকে এই ক্ষেত্রে যথেষ্ট চুজি করে তুলেছে। এই চুজি ব্যাপারটা এমন হয়ে দাড়িয়েছে যে শুনলে অবাক হবেন,সোহিনী সম্প্রতি টলি সুপার্স্টার “দেব” এর কাছ থেকে একটা কমার্শিয়াল সিনেমার অফার পেয়েও স-সন্মানে ফিরিয়ে দিয়েছেন! কারণ সেটা সাউথ ইন্ডিয়ান সিনেমার নকল। তবে দেব ওর “না” বলাটাকে যথেষ্ট সন্মান দিয়েছেন।

বড়-বড় হিরোইনদের মত তিনি কাড়ি কাড়ি টাকা রোজগার করতে চান না। কারণ তিনি একটি সহজ লাইভস্টাইল ফলো করেন। একটা ছোটো দু’কামরার ফ্যাট আর মারুতি সুজুকি সুইফট গাড়িতেই বেশ সন্তুষ্ট তিনি। যদিও গাড়িটার বয়্স বেড়ে যাওয়ায় শুধু সেটাকে হয়ত বদলে ফেলবেন ঠিকই। তবে এক্ষেত্রে তাকে যে অনেক দামি গাড়ি কিনতেই হবে! এই রকম অভিলাষ তার মোটেও নেই। নিজের আয় বুঝে ব্যয় করাটাই তার চরিত্র।