লক্ষী আগরওয়াল, এক অনুপ্রেরনীয় চরিত্র !

ছপক

০০৫ সালে দিল্লীতে থাকা লক্ষীর জীবনটাই বদলে গেল। বয়সে অনেক বড় একটা লোকের প্রেমকে প্রত্যাখ্যান করে পড়লো বিপদে। তার মুখে অ্যাসিড দিয়ে দিল লোকটা। জীবনটা বদলে গেল। সকলের চোখে সে হয়ে গেল করুনার পাত্র, কারো চোখে ভয়ংকর। কেউ কেউ পরামর্শ দিল কাউকে মুখ না দেখাতে। বাড়িতে আয়না সরিয়ে দিলে বাবা মা। আত্মহত্যা করবে বলে ঠিক করেও পিছিয়ে আসে সে৷ ১৫ বছর বয়সেই সে ঠিক করে লড়বে। ২০০৬ সালে আদালতে অ্যাসিড ব্যবহার নিয়ে কেস করে সে। দীর্ঘ লড়াই এর পর ২০১৩ সালে সরকার বিনা অনুমতিতে অ্যাসিড ব্যবহার নিষিদ্ধ করে। এরপর স্টপ অ্যাসিড ক্যাম্পেইনের মেম্বার অলোককে বিয়ে করে সে। মিশেল ওবামার কাছ থেকেও পুরস্কার নিয়েছে সে। এরপর সে ক্রমশঃ সেলেব্রিটি হয়ে ওঠে।

মেঘনা গুলজারের পরবর্তী ছবি ‘ছপক‘ এর বিষয় হল লক্ষী। অভিনয়ে রয়েছেন দীপিকা পাড়ুকোন। লক্ষীর ভূমিকায় তার পোস্টার রীতিমতো ট্রেন্ডে চলে এসেছে। শুটিং এখনই শুরু হয়েছে সিনেমার। রিলিজ হবে ২০২০ সালের জানুয়ারিতে।