তারিখ: সময়ের টাইমলাইনে, জীবনের গল্প !

তারিখ

চুর্ণি গাঙ্গুলীর নির্বাসিত ছবির কথা মনোগ্রাহী বাঙলা ছবির দর্শক আজো ভোলেন নি। নিজের দেশ থেকে বিতাড়িত এক পৃথিবী বিখ্যাত লেখিকার জীবন নিয়ে তৈরী সেই ছবি দেখে কেউ ভাবতেই পারেনি, পরিচালিকা হিসাবে চুর্ণির সেই প্রথম মাঠে নামা। আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে স্বীকৃতি, দর্শকের ভালোবাসা কী পায় নি সেই ছবি। তথাকথিত বাঙলা ছবির গথ ভেঙে বেরিয়ে আসাই যে ডিরেক্টর হিসাবে চুর্ণির প্রৌম লক্ষ্য, তাও যেন বলে দিয়েছিলেন নিজের ছবির পরিবেশনার মধ্যে দিয়ে। আর বিষয়টা আরো একবার স্পষ্ট হয়ে গেল তার নতুন ছবি, তারিখের ট্রেলারে! অপেরা মুভিজ প্রডিউসড এই ছবিতে এক সঙ্গে বেশ একঝাঁক তারকা। শাশ্বত চ্যাটার্জি, ঋত্বিক চক্রবর্তী, রাইমা সেন, অনসুয়া মজুমদার, অলকানন্দা সেন আরো অনেকে। ছবির ট্রেলর এতটাই ঘটনাবহুল, আগের থেকে কিছুই নির্দিষ্ট করা যায় না। তবে ছবিতে ফেসবুক নামক সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মটির যে একটা বিশেষ ভূমিকা রয়েছে, তা ট্রেলরেই পরিষ্কার করে দিয়েছেন ডিরেক্টর! বাংলা সিনেমা তারিখ ট্রেলার রিভিউছবির নাম তারিখ, সেটা কী নির্দিষ্ট কোনো দিন, নাকি বেশ অনেক গুলো দিনের সমষ্টি তা বুঝতে গেলে ছবিটা দেখতে হবে, আর ট্রেলরের ঘোর মিস্ট্রি সেই চাহিদাটা বাড়িয়ে দিতে যথেষ্ট, এটুকু বলা যায়। চুর্ণি যে সমস্ত অভিনেতাদের নিয়ে কাজ করছেন, তাদের ছবি দেখিয়ে যেকোনো দর্শকের স্বভাবতই ছবিটির প্রতি আগ্রহ বেড়ে যাবে। ট্রেলর এতটাই রহস্যে ঘেরা, ছবিতে আসল গল্পটা যে কোন চরিত্রের তাও ধরা বেশ কঠিন! চুর্ণি এমন এক সমাজে দাঁড়িয়ে ছবিটির গল্প বলছেন, যেখানে সোশ্যাল মিডিয়া একটা স্বয়ংসম্পুর্ণ জগত হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর সেটা যে, যেকোনো বাঁধন ভেঙে দিয়ে পারে, তাও ট্রেলার শুরুর প্রথমের জানিয়ে দিয়েছেন তিনি। বেশ অনেক গুলো বছরের বিভিন্ন দিনের সমষ্টিগত একটা গল্প হয়তো প্রেজেন্ট হবে এই ছবিতে, ট্রেলার দেখে যেটুকু বোঝা যায়, তবে শিওর না কিছুই। ছবিটা যে থ্রিলার তা ছবির মধ্যেকার রহস্য, রাজানারায়ণ দেবের আবহ সঙ্গীত সবকিছুই বেশ স্পষ্ট করে বলে দেয়। তবে ঠিক কী ঘটনা নিয়ে তৈরী ছবির গল্প, জীবনের কোন টাইমলাইনের কথাই বা শোনাবেন পরিচালিকা, সবকিছুই এখন ট্রেলরের রহস্যের আড়ালে! থ্রিল, সম্পর্কের বদলাতে থাকা সমিকরণ, আর সবকিছুর উপরে, বয়ে চলা জীবন, এই সব কিছু মিশে থাকা তারিখের ট্রেলর, ট্রেলর হিসেবে ভীষণ ইন্টারেস্টিং! কোনো একটা ভাবনাতে কিছুতেই ভিউয়ারকে আটকে রাখতে চায় না, সব কিছুর উপরে গিয়ে বাড়িয়ে দেয় ছবিটা দেখার ইচ্ছা…

ছবিটা কেমন হবে, আসল গল্প বা সেই গল্পের মধ্যে আসল রহস্যটাই বা কী? আসলেই কোন তারিখের ঘটনা ছবির জিওনকাঠি, এই সব নিয়ে ভাবাতে থাকে এই ছবির ট্রেলর, দর্শকের কাছে একটা অস্থির অপেক্ষার দাবি, থেকেই যায়।