মা-বোনেদের ‘সিরিয়াল’ বলে বলে গোল দিচ্ছে বিশ্বকাপ’কে!

বিশ্বকাপ নিয়ে মেতে উঠেছে গোটা বিশ্ব। তবুও টানা চার সপ্তাহ ১৫ আরবান টি.আর.পি এর তালিকায় শীর্ষস্থান ধরে রাখল সৌমেন হালদার-সুমাল্য ভট্টাচার্য পরিচালিত ‘বকুলকথা’ (৯.২)। জি-বাংলায় রাত নটার স্লটে দর্শক টানার নিরিখেও স্টার জলসার ‘প্রতিদান’কে বহু পিছনে ফেলে এগিয়ে গেছে বকুল। এই একটানা সাফল্যে বেশ উচ্ছ্বাসিত ‘বকুলকথা’র বকুল উষসী রায়।দ্বিতীয় স্থানে এই সপ্তাহে রয়েছে ‘জয় বাবা লোকনাথ’ (৮.০) ও তৃতীয় স্থানে সুরিন্দর ফিল্মেসের ‘সাত ভাই চম্পা’ (৭.১)। চতুর্থ স্থানে রয়েছে ইন্দ্রাণী হালদার অভিনীত’ সীমারেখা’ (৭.০)। বেশ কিছুটা পিছিয়ে পঞ্চমে ‘করুণাময়ী রাণী রাসমণি'(৬.৭)। ওই একই রেটিং নিয়ে একই স্থানে রয়েছে স্টার জলসা-র ধারাবাহিক ‘ফাগুন বউ’। রাত সাড়ে সাতটায় স্টার জলসা-র ধারাবাহিক ‘কে আপন কে পর’-এ নতুন অভিনেতা-অভিনেত্রীদের নিয়ে শুরু হয়েছে নতুন ট্র্যাক। তাই এই ধারাবাহিকের রেটিংয়েও যে বেশ রদবদল ঘটবে সেটা বলাই বাহুল্য। তবে সেটা দর্শকের কতটা মন জয় করতে সক্ষম হয় তা অবশ্য জানা যাবে আগামী সপ্তাহের তালিকা প্রকাশিত হলেই।

আরও পড়ুন : বাবা যাদবের পছন্দের তালিকা থেকে বাদ পড়লেন জিৎ?

জনপ্রিয়তার নিরিখে দেখা যাচ্ছে স্টার জলসা অপেক্ষা জি-বাংলার ধারাবাহিক গুলির টি আর পি বিগত কয়েক সপ্তাহ ধরে বেশ উর্ধ্বমুখী। এর কারণ ‌হালফিলের বাংলা ধারাবাহিকগুলি গতানুগতিক গল্পগুলো যখন প্রায় এক ঘেয়ে হয়ে উঠেছে, সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে একইসাথে পিরিয়ডিক, সোশ্যাল ড্রামা, ভক্তিমূলক, ফ্যান্টাসির মত নানান গল্পের সমাহারে বাংলার ছোট পর্দাকে সমৃদ্ধ করেছে জি বাংলা।

Star Jalsha and Zee Bangla

শুধু গল্পেই নয় জি-বাংলার ধারাবাহিকগুলি বাজিমাত করছে উন্নত গ্রাফিক্সের কাজেও। রুপকথার জগৎ সৃষ্টিতে কিংবা পিরিয়ডিক লুক তৈরিতে উন্নত গ্রাফিক্স দর্শককে বেশ আকৃষ্ট করছে জি-বাংলার ধারাবাহিকগুলির প্রতি। এইসব বেশ কিছু কারণ স্টার জলসাকে পিছনে ফেলে এগিয়ে যাওয়ার অন্যতম কারণ বলে মনে করছে ছোট পর্দার একাংশ। ছোটপর্দার দর্শককে তাদের ধারাবাহিকের প্রতি আকৃষ্ট করতে স্টার জলসা কি পদক্ষেপ নেয় সেটাই এখন দেখার অপেক্ষা।