“আমরা পরিচালকরা কটা আর টাকা পাই সিনেমা করে?”- তথাগত ব্যানার্জি।

স্থান- বেহালার এক বহুতল ফ্ল্যাটের ছাদ। বৈশাখের প্রখর রোদে চকচক করছে কলকাতার ছোট-বড়-মাঝারি ছাদগুলো, এই শহরের অলিতে গলিতে ছড়িয়ে রয়েছে ভালোবাসার গল্প এবং সম্পর্কের...

“পরবর্তী কাস্টিংটা চমকে দেবে বাংলা ইন্ডাস্ট্রিকে”- অরিন্দম ভট্টাচার্য !!

পেশা চ্যাটার্ড অ্যাকাউনটেন্ট নেশা সিনেমা বানানো, সম্প্রতি এনার হাত ধরে রিলিজ হয়েছে "অন্তর্লীন", যার সুবাদে বহু মানুষের ভালোবাসা তো পেয়েছেন সঙ্গে পেলেন ফিল্ম ফেয়ারে...

“পুরুষালী চেহারার না হলে তার বিপরীতে অভিনয়ই করতাম না!”- চপল ভাদুড়ী।

কলকাতার কোলাহল থেকে অনেক দূরে লেখিকা দেবযানী ঘোষের বাড়িতে চলছে পরিচালক দীপ ঘোষের "আই লাইনার"র শুটিং প্রধান চরিত্রে সায়ন্তন ঘোষ ওরফে মেঘ! বাড়িতে ঢুকে...

“অন্বেষা মানেই মিষ্টি মিষ্টি গান, এটা ভাঙতে চাই !”- অন্বেষা দত্ত গুপ্ত

যখন প্রথম গান গাইতে স্টেজে ওঠেন অবশ্যই সর্বভারতীয় স্তরে চমকে দিয়েছিলেন গোটা দেশকে! শ্রেয়া ঘোষালের একটা বিখ্যাত গান “আমি যে তোমার” ,যেটা উনি রেকর্ডিং...

“অনিন্দ্যদা বলেছিলেন, এটা তোরা পারবি” – দোলন-মৈনাক!

প্রেমের জন্য গান না গানের জন্য প্রেম? বোধহয় এই দুটো জিনিসই একসাথে কাজ করে দোলন-মৈনাক এর সাংসারিক জীবন থেকে সঙ্গীত জীবন সর্বত্রই! হ্যাঁ এটা...

“পুজোতে সিনেমার মিউজিক অ্যালবামের লড়াইতে জুলফিকার এগিয়ে থাকবে”-তিমির বিশ্বাস!

ইনি একজন গায়ক, গান গাওয়া ছাড়া লেখা, সুর দেওয়া দুটোই করেন…২০১০ এ টলিউডে প্রথম আত্মপ্রকাশ প্লে-ব্যাক সিঙ্গার হিসেবে তারপর গেয়ে ফেলেছেন ৩৯ টার মত...

“প্রপার হিরোইন যদি বলতে হয় সেটা কোয়েলদি!”- বনি সেনগুপ্ত!

বাবা অনুপ সেনগুপ্ত, মা পিয়া সেনগুপ্ত, দাদু সুখেন দাস…টলিউডের কানেকশনটা বরাবরই ছিল তাঁর কাছে কিন্তু প্রথমে এই লাইট-ক্যামেরা-অ্যাকশেন এর বদলে জীবনটা শুরু করেছিলেন ব্যাট-বল...

“দিদা যখন ছিলেন পুজোগুলো অনেক স্পেশাল ছিল”- রিয়া সেন।

দিদা সুচিত্রা সেন , মা মুনমুন সেন , দিদি রাইমা সেন এই পরিচয় হয়তো কারুর থাকলে আর তার পরিচয়ে নতুন করে বলার কিছু থাকে...

‘অনুপমদা’র জন্য গান গাওয়াটা ছিল হাতে চাঁদ পাওয়ার মত ব্যাপার’ – ইমন চক্রবর্তী !

মে মাসের শেষের দিক, আলিপুর আবহাওয়া দপ্তরের কোন আগাম বার্তা ছিল না, প্রচণ্ড গরমে ঠাণ্ডা বাতাস আসার সম্ভবনা আছে কিনা কিন্তু স্বাভাবিকভাবেই আবহাওয়া দপ্তরকে...

“সৃজিত আমার ফেলুদা হওয়ার শখ পূরণ করেছিলো” – বরুন চন্দ!

ঠিক ৪৫ বছর আগে বিখ্যাত সত্যজিৎ রায়ের হাত ধরে হয়েছিলো “সীমাবদ্ধ”এ সিনেমাভিষেক, তারপর প্রায় ২০ বছর ছিলেন লাইট-ক্যামেরা-অ্যাকশেন থেকে অনেক দূরে, ফিরলেন আবার ঋতুপর্ণ...

”তাই রে নাই রে নাই রে আমি শরীর বেচে খাই রে! “- শিলাজিৎ !

ধরবো ধরবো করছি কিন্তু ধরতে পারছি না…সত্যি এই মানুষটাকে কোনও নির্দিষ্ট নিয়মে ধরে রাখা যায় না, আপন খেয়ালে সৃষ্টিসুখের উল্লাসে মত্ত! সেই যুগের নাভির...

“আই অ্যাম নট রেডি ফর ম্যারেজ, রেডি নই বলে হয়তো ভাল ছেলে পাই নি !”- অরুণিমা ঘোষ

স্বাধীনতা দিবসের প্রাক্কালে আমরা যার সাথে আজ আড্ডা দেবো তিনি খুবই স্বাধীনচেতা একজন মহিলা সঙ্গে তিনি বাংলার ছোটপর্দায় অত্যন্ত পরিচিত মুখ আর বড়পর্দায় যার...