বন্ধুত্বে ভালোবাসা নাকি ভালোবাসায় বন্ধুত্ব? আপনি কি বলেন..

শর্টফিল্ম আর বড়োপর্দার সাবেকিআানা টপকে বাঙালির ভালোলাগার খাতায় ওয়েব সিরিজ। এবং তাতে আঠ থেকে আষি সবাই আসক্ত। আর একারণেই পরিচালকেরা মুখিয়ে পড়েছেন নিত্যনতুন শর্টফিল্মের অনুসন্ধানে। পরিচালক শুভম দত্ত’ও রয়েছেন এই তালিকায়। লম্বা-চওড়া বাহিনী নিয়ে তিনিও প্রস্তুত বাঙালিকে নতুন একটা গল্প উপহার দিতে। সৌজন্যে তাঁর আগামী শর্টফিল্ম ‘খেলা ভাঙার খেলা’।

আরও পড়ুন : এবার আপনাদের হাতের মুঠোয় ‘সেই যে হলুদ পাখি’!

সাম্য আর অরুন্ধতী’র গল্প দিয়ে সেজে উঠেছে সিরিজটির প্রেক্ষাপট। সাম্য আর অরুন্ধতী একে অপরের বেশ ভালো বন্ধু। তবে কলেজে অরুন্ধতী সাম্য’র চেয়ে সিনিয়র। আর একারণেই সাম্য’র আগেই কলেজের পাঠ চুকিয়ে ফেলে অরুন্ধতী এবং উচ্চতর শিক্ষার জন্য সে পাড়ি দেয় দিল্লিতে। সাম্য’র হাজার চেষ্টাও তাকে আটকে রাখতে পারেনি। এমনকি সাম্য তাকে মনের কথা বললেও উত্তরে অরুন্ধতী বলেছিলো তারা কেবল ভালো বন্ধু। এভাবেই কেটে যায় দু-দুটো বছর। দিল্লির পড়াশোনা শেষ করে অরুন্ধতী ফিরে আসে কলকাতায়। ওদিকে সাম্য’ও কলেজের পড়াও শেষ। এখন সে একটা এজেন্সিতে কন্টেন্ট রাইটার। একদিন সাম্য’কে ফোন করে অরুন্ধতী এক ক্যাফেতে দেখা করার আর্জি রাখে। কথামতো দুজনেই পৌঁছায় সেখানে। ঠিক তখনই অরুন্ধতী সাম্য’র কাছে একটি সারপ্রাইজের কথা বলে এবং সেটা তাঁর উড বি। অরুন্ধতী’র উড বি ক্যাফেতে আসার পর তার আসল রুপ ধরতে পারে অরুন্ধতী। সে বুঝতে পারে তাঁর উড বি টাকা-পয়সা আর স্টেটাস ছাড়া কিছুই চেনে না। অরুন্ধতী রীতিমতো তাকে রিফিউজ করে। এবং শেষমেষ সাম্য আর অরুন্ধতী নামের দুই শালিক একই সাথে আবারও ডানা মেলে। সিরিজটির মূখ্য তিনটি চরিত্রে অভিনয় করবেন অরুনাভ দে, অঙ্গনা রায় এবং যুধজিৎ সরকার।