বুদ্ধিতে শান দিয়ে সম্মুখ সমরে এবার গুরু-শিষ্য!

ব্যোমকেশ বলুন কিংবা ফেলুদা, বাস্তবে এদের বুদ্ধির কোনো তুলনা হয়না। প্রফেসর জন’ও ঠিক একই গোছের মানুষ। তবে এনার বুদ্ধির মাত্রা ব্যোমকেশ বা ফেলুদা দিয়ে মাপা বেশ কষ্টসাধ্য। কারণ ব্যোমকেশ এবং ফেলুদা এই দুই গোয়েন্দাকে মিশিয়ে ফেললে যে মিক্সোলোজি পাবেন আদপে সেটাই প্রফেসর জন।

খুব শীঘ্রই পরিচালক বাসুদেব কৃষ্ণ, প্রফেসর জন নামক এই চরিত্রের সাথে আমাদের পরিচিত করাবেন। এবং এই আলাপচারিতার নেপথ্যে থাকছে তাঁর পরবর্তী ছবি “আরণ্যক এবং মুদ্রা রাক্ষস”। এটি একটি শর্টফিল্ম। আর প্রফেসর জন তাঁর ছবির খলনায়ক। প্রফেসর জন’র চরিত্রে আমরা দেখতে পেতে চলেছি পরিচালক মনোজ মিশিগান’কে। প্রফেসর জনের বুদ্ধিমত্তা যেমন ব্যোমকেশ, ফেলুদা’দের হার মানায়, তেমনই তিনি বেশ অহংকারীও তাঁর বুদ্ধিবৃত্তির কারণে। এই প্রফেসরের কাছে আছে নাকি একটা মূল্যবান মুদ্রা, যেটা প্রায় যকের ধনের মত আগলে রেখেছেন তিনি। প্রতিটি গল্পের মূল সূত্র ধরে এই গল্পেরও একজন নায়ক রয়েছেন। যার নাম আরণ্যক। কিন্তু আর পাঁচটা গল্পের মতো হিরো-ভিলেন’র ঢিসুম-ঢিসুম হয়তো দেখতে পাবেন না, তবে লড়াই একটা অবশ্যই থাকবে এবং সেটা বুদ্ধির লড়াই। পরিচালকের কথায়, “এই বুদ্ধির লড়াইয়ে সর্বদাই তিনি এগিয়ে রেখেছেন খলনায়ক’কে। এবং এটাই আজকের বাস্তব পরিস্থিতি”।

আরণ্যক এবং মুদ্রা রাক্ষস
আরণ্যক এবং মুদ্রা রাক্ষস

ছবিতে আরণ্যকের ভূমিকায় অভিনয় করবেন অরুনাভ দে। রিল লাইফে প্রফেসর জন ও আরন্যকের বুদ্ধির লড়াই দেখা গেলেও রিয়েল লাইফে এই দুজনের সম্পর্কটা গুরু-শিষ্যের। এছাড়াও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে থাকবেন সৌম্য মজুমদার, অভিজিৎ রায় প্রমুখরা। খুব তাড়াতাড়ি শুটিং শুরু হবে এই শর্ট ফিল্মের…আরও খবর জানতে চোখ রাখুন গুলগালে…