ঋতুপর্ণের সঙ্গে ওপারে গিয়ে হয়তো জোর ঝগড়া হবে তুই তোকারি করে !

শেষ তাঁকে দেখা গিয়েছিল রাখী বন্ধন সিরিয়ালে। দেখতে দেখতে পেরিয়ে গেল এক বছর। রিতা দি নেই। প্রয়াত অভিনেত্রী রীতা কয়রালের প্রয়াণ বার্ষিকী আজ। অনেকদিন ধরেই ক্যানসারে ভুগছিলেন তিনি। এত তাড়াতাড়ি তো যাওয়ার ছিলনা। কিন্তু মারণ রোগ কিছু বলবারও নেই। লিভার ক্যানসারে ভুগছিলেন জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী। স্বর্ণযুগের অভিনেতা জহর গাঙ্গুলীর দৌহিত্রী রিতা। দূরদর্শনের সংবাদ পাঠিকা হয়ে ক্যারিয়ার শুরু। নৃত্য পটীয়সী ছিলেন। প্রথমে পরিচারিকার চরিত্র বেশী করতেন। নিজেকে কত উন্নত করা যায় ওনার অভিনয় গ্রাফ দেখলে বোঝা যায়। দূরদর্শনের জনহিতৈষী টেলিছবি হত তখন এনএফডিসির সৌজন্যে সেই একটি টেলিছবিতে নায়িকার ভূমিকায় গ্রামের মেয়েদের সজাগ করার রোল প্লে করেন রিতা

রীতা কয়রালএরপর সুপ্রিয়া দেবী অভিনীত “জননী” সিরিয়ালে বেনুদির মেজো বউমা হয়ে বিশাল নাম করেন রিতাজননী সিরিয়ালে প্রয়াত অভিনেতা পার্থ মুখোপাধ্যায়ের স্ত্রী। সিরিয়াল জনক বিষ্ণু পালচৌধুরীরিতাকে দেন এ মহার্ঘ্য সুযোগ। সেখান থেকেই বড় রোল পেতে শুরু করেন। তারপর অঞ্জন চৌধুরীর ছবিতে ভিলেন বউ য়ের রোল করে খুবই জনপ্রিয় হন। অন্যদিকে অপর্না সেন, ঋতুপর্ণ ঘোষ অঞ্জন দত্ত-র ছবিতেও কাজ করেন।

রীতা কয়রালসিরিয়াল জগৎ ছাড়াও একাধিক জনপ্রিয় বাংলা ছবিতে অভিনয় করেছেন রীতা কয়রাল। ‘পূজা’, ‘জীবন নিয়ে খেলা’, ‘‌অসুখ’,’পারমিতার একদিন’ ‘আশ্রয়’, ‘ইতি মৃণালিনী’, ‘বর আসবে এখুনি’, ‘দত্ত ভার্সাস দত্ত’-র মতো বহু ছবিতে তাঁর অভিনয় দর্শকদের প্রশংসা কুড়িয়েছে। শেষ ছবি রাজ চক্রবর্তী প্রোডাকশনের “গুটি মল্লারঅতিথি“।

রীতা কয়রালেমলিনা দেবী, রেনুকা রায়, গীতা দে র উত্তরসূরী ছিলেন রিতা কয়রাল। অভিনেতা সৌমিত্র বন্দ্যোপাধ্যায়-র সঙ্গে পরিনয় সুত্রে আবদ্ধ হন। প্রভাত রায়ের “খেলাঘর” ছবিতে রিতা সৌমিত্র রিয়েল লাইফের মতো স্বামী স্ত্রীর অভিনয় করেছিলেন। সৌমিত্র র সঙ্গে ঘর করা বেশীদিন হয়না সৌমিত্র মারা যান। নিজের নাচের স্কুল খোলেন রিতা। করেন দ্বিতীয় বিবাহ। রয়েছে এক কন্যা। নিজে হাতে ফ্ল্যাট পরিস্কার করে সাজিয়ে রাখতেন রোজ সংসারী রিতা। ঋতুপর্ণ ঘোষকেও জাতীয় পুরস্কার পেতে নিতে হয় টলিউডের এই দক্ষ অভিনেত্রীর সাহায্য। যার কন্ঠ ছাড়া ঋতুপর্ণ জাতীয় পুরস্কার পেতেন না “বাড়িওয়ালী“তে। কিন্তু রিতা তার দাম পাননি।

রীতা কয়রালে“বাড়িওয়ালী ছবিতে কিরন খেরের ডাবিং করে রিতা জাতীয় পুরস্কার পাননি একা কিরন খের পান। অনুপম খের ছবির প্রযোজক হওয়ায় ঋতুপর্ণ চুপ থাকেন। চক্রান্তের শিকার হন রিতা। ভেঙে যায় দুই এক পাড়ার ছেলেবেলার বন্ধু রিতা ঋতুর সম্পর্ক। বুকভরা অভিমান নিয়ে আজ চলে গেলেন রিতা। ঋতুপর্ণের সঙ্গে ওপারে গিয়ে হয়তো দুজনের জোর ঝগড়া হবে তুই তোকারি করে। শেষে হয়তো দুই বাল্যবন্ধু খেলার সাথীর মিলও হবে দুজনের। খলনায়িকা সঙ্ঘমিত্রা ব্যানার্জ্জীর মতো শেষটা হল খলনায়িকা রিতাদির। দুজনেই এক ঘরানার দাপুটে অভিনেত্রী এক রোগে অকালে চলে গেলেন। রিতাদি আপনার অভিনয় আপনাকে বাঁচিয়ে রাখবে।