আজও অমলিন এই খাঁটি বাঙালীয়ানা !

ধুতী

হেমন্ত মুখোপাধ্যায় ও তাঁর পরিবার স্ত্রী বেলা মুখোপাধ্যায় পুত্র জয়ন্ত পুত্রবধূ মৌসুমী চ্যাটার্জ্জী সহ নেমতন্ন খাচ্ছেন ভানু বন্দ্যোপাধ্যায়ের মেয়ের বিয়েতে। এরকম বাঙালী বিয়েবাড়ি,বাঙালী খাবারের মেনু,বাঙালী সাজ ধুতী শার্ট বেনারসী ঢাকাই খোঁপায় বেলের মালা,বসে পাত পেড়ে খাওয়া আজকাল আর নেই। শুধু তাই নয় সুপ্রিয়া দেবী গৌরী দেবী অনেক গুণীজনকেই নিজে হাতে পরিবেশন করে খাইয়েছিলেন লর্ড ভানু।মুনমুন সেন ও বলেছেন ‘এখনের কলকতা বদলে গেছে। বাঙালীদের উপহার দেওয়ার মধ্যেও বুদ্ধিদীপ্ত ছাপ থাকত। ভালো বই আর রজনীগন্ধা’… উপহার হিসেবে দিতে নিতে মুনমুনের সবচেয়ে আজও প্রিয়।যে ট্র্যাডিশন আর কোন শহরে কোনকালে ছিলনা।এখন বাঙালীর বিয়েবাড়ি নামেই আতঙ্ক বুফেতে কুলচা না বেলচা , ধোকলা না ফোকলা গেলায়,রসগোল্লা পান্তুয়ার জায়গায় এখন জিলিপি ভর সন্ধেবেলা।তাও বাঙালী জিলিপি নয়।নিজের ঐতিহ্য জলাঞ্জলী দিয়ে গুজ্জুদের নকল।

এইছবি গুলো তাই আজও অমলিন খাঁটি বাঙালীয়ানা দেখেও সুখ। আর ভানু ব্যানার্জ্জী ছিলেন বাঙালীর পুং লিঙ্গ খাঁটী বাঙাল। 😅

হেমন্ত স্মরণ একটু অন্যভাবেই করলাম।

অসাধারন ছবি সৌজন্যে – ভানুপুত্র শ্রী গৌতম বন্দ্যোপাধ্যায়
Written By – শুভদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়