“একটা কথা বলেছিলাম, বাবা ডিরেক্ট করলে আমি এই ছবি করবো না”- সম্পূর্ণা লাহিড়ী

কেরিয়ার জীবনের প্রথম পথ হাঁটা শুরু করেন দেখতে দেখতে কাটিয়ে দিয়েছেন প্রায় ৮ বছর, সাফল্যের ঝুলিটাও ভরেছে অনেক নামী সিনেমা,সিরিয়ালে নিজের অভিনয় দক্ষতার সম্পূর্ণ প্রমান দিয়ে , তিনি সম্পূর্ণা লাহিড়ী ।

২০০৮ সাল থেকে মডেলিং দিয়ে নিজের কেরিয়ার জীবনের প্রথম পথ হাঁটা শুরু করেন দেখতে দেখতে কাটিয়ে দিয়েছেন প্রায় ৮ বছর, সাফল্যের ঝুলিটাও ভরেছে অনেক নামী সিনেমা,সিরিয়ালে নিজের অভিনয় দক্ষতার সম্পূর্ণ প্রমান দিয়ে , তিনি সম্পূর্ণা লাহিড়ী । সম্প্রতি “পরবাস” এর সাফ্যলের পর তাঁর নিজস্ব কিছু কথা ভাগ করে নিলেন আমাদের সাথে……

শুভদীপ- “পরবাস” নিয়ে কি রকম রেসপন্স পেলে?

সম্পূর্ণা– যতজন দেখেছেন তাদের কাছ থেকে সত্যিই খুব ভালই রেসপন্স পেয়েছি। বাবারও এটা প্রথম ফিল্ম এবং আমারও এটা অনেকটা বড় চরিত্র বটেই অনেকগুলো শেডস আছে চরিত্রটার মধ্যে……

শুভদীপ- একদম মুখ্য চরিত্রেই আছো তুমি…

সম্পূর্ণা– মুখ্য চরিত্র ছাড়াও স্কুল লাইফ থেকে বিয়ে ও বাচ্চা একটা বিশাল বড় জার্নি। সেটা ওরকম ভাবে ক্যারি করা সব মিলিয়ে কাজের অভিজ্ঞতাও ভাল ছিল আর যারা দেখেছেন তারাও প্রশংসা করেছে।

 

শুভদীপ- তোমার বাবা নীলাদ্রি বাবুর সাথে তোমার প্রথম ফিল্ম…… তো সেটে বাবা-মেয়ের সম্পর্ক নাকি পরিচালক-অভিনেত্রীর সম্পর্ক কোনটার প্রভাব বেশি ছিল?

সম্পূর্ণা-একদম ছোটবেলা থেকেই বাবার কাছে কাজ শেখা তাই বাবার থেকে বকুনিও খেয়েছি, ডেফিনেটলি এখন বড় হয়েছি আর আমি নিজেও ইন্ডাস্ট্রি তে কাজ করি এবং প্রফেসনালি কাজ করি তাই সেই জায়গা থেকে বাবাও আমাকে আর পাঁচ জন ডিরেক্টর যে ভাবে অ্যাপ্রচ করে, উনি করেছেন এবং স্ক্রিপ্টটা পড়ে রাজি হয়েছি আর রাজি হওয়ার সময় একটা কথা বলেছিলাম,বাবা ডিরেক্ট করলে আমি এই ছবি করবো না একজন প্রফেসনাল ডিরেক্টর ও প্রফেসনাল অভিনেত্রী হিসেবে কাজ করতে পারলে তবেই করবো। যদিও সেটে দুটো সম্পর্কের প্রভাব ভালই ছিল……

শুভদীপ- তোমার ২০১২ তে তিনটে হিট সিনেমা তারপর ২০১৪ তে ব্যোমকেশ আর এখন ২০১৬ তে “পরবাস” করলে, তো এই ২ বছর ছাড়া ছাড়া তোমার সিনেমা রিলিজ হচ্ছে এর পেছনে কি কোনও বিশেষ স্ত্র্যাটেজি  আছে?

সম্পূর্ণা– ( হাসি)……না না ওরকম কোন স্ত্র্যাটেজি নেই আসলে অনেক ছোট বয়স থেকে কাজ শুরু করেছিলাম ২০০৮ এ আমি সানন্দা তিলোত্তমার ফাইনালে ছিলাম তারপর সিরিয়াল, সিনেমা…কাজ করে গেছি এরপর কখন সিনেমাটা রিলিজ হবে সেটা আমাদের হাতে থাকে না…সেরকম ভাবেই হয়েছে হয়তো আর মাঝখানে আমি ২ বছর বম্বেতে ছিলাম সেই জন্য হয়তো গ্যাপ হতে পারে তবে স্ত্র্যাটেজিটা ভালই…(হাসি)……

 

শুভদীপ- তুমি বিগ বসের প্রথম সংস্করনে ছিলে তো তোমার কি মনে হয় বিগ বস কেরিয়ার বা পার্সোনাল লাইফে কতোটা প্রভাব ফেলে?

সম্পূর্ণা– না প্রফেসনাল লাইফে সেরকম প্রভাব ফেলে না।। একদমই না…

শুভদীপ- ব্যক্তিগত সম্পর্কগুলো একটু বেশি কাটা-ছেঁড়া হয় না?

সম্পূর্ণা– ব্যক্তিগত সম্পর্ক আমি বলবো না… আমার সাথে হয় নি সেরকম এটা মানুষ টু মানুষ ভ্যারি করে তবে বিগ বসে থাকলে একটা সুবিধে সবার সাথে ইকুয়েশন পরে ,আসলে নিজেকে খুব ভাল করে চেনা যায়… আমি মানুষটা কিরকম সেটা খুব ভাল করে বোঝা যায়……

শুভদীপ- তোমার পরবর্তী সিনেমা “অন্তর্লিন” এ তোমার চরিত্র সম্পর্কে বলো…

সম্পূর্ণা– “অন্তর্লিন” খুব ইন্টারেস্টিং একটা থ্রিলার। আমার চরিত্র একজন ইনভেসটিগেটিং অফিসারের , নার্কোটিক ডিপারমেনট , খুব রাফ অ্যান্ড টাফ চরিত্র এবং খুব স্ত্রং একটা ক্যারেক্টার।

শুভদীপ- “তারে আমি চোখে দেখি নি” খুব হিট একটা সিরিয়াল ছিল… এরপর কবে তোমায় ছোট পর্দার দর্শক তোমাকে দেখতে পাবে?

সম্পূর্ণা– আমাকে ছোট পর্দার দর্শকরা খুব শিগ্রীই দেখতে পাবে “মহানায়ক” সিরিয়ালে শর্মিলা ঠাকুরের আদলে তৈরি খুব ছোট্টও একটা রোলে… এখন মেগা সিরিয়াল করার কোনও প্ল্যান নেই।

 

শুভদীপ- টলি উডের এমন কোনও অভিনেতা যার বিপরীতে তোমার কাজ করার ইচ্ছে আছে কিন্তু কোনও কারনবশত সেটা করা হয়ে ওঠে নি…

সম্পূর্ণা– না সেরকম কিছু নেই…সেটা খুব সাময়িক তবে আমি ছোটবেলা থেকেই সলমন খান এর খুব ফ্যান… উঠতে বসতে খেতে ঘুমতে মনে হয় যদি সলমন এর বিপরীতে কাজ করতে পারতাম… ওর নামে অনেকরকম সমালোচনা শুনি কিন্তু “সুলতান” দেখার পর আমি গর্ব করে বলতে পারি আমি সলমন খানের ফ্যান!

শুভদীপ-  “অন্তর্লিন” ছাড়া আর কি কি সিনেমায় কাজ করছো?

সম্পূর্ণা– “অন্তর্লিন” ছাড়া আরেকটা সিনেমার শুটিং চলছে “প্রখর রুদ্র” জানি না কবে বেরবে এছাড়াও একটা কমেডি ফিল্ম করেছি রজতাভ দত্ত-এর সাথে সেটারও শুটিং শেষ… তিনটি ছবির রিলিজ বাকি আছে জানি না কবে আসবে…

শুভদীপ- তার মানে ২০১৬ তে আবার  ২০১২ সালের রিপিটেশন দেখতে পাবো আমরা?

সম্পূর্ণা– ও বাবা… (হাসি)…হতে পারে আবার নাও হতে পারে !! আসলে আমি ভবিষ্যতের কথা বেশি ভাবি না…!

শুভদীপ- তোমাকে অনেক ধন্যবাদ এত মূল্যবান সময় দেওয়ার জন্য…তোমার আগামী জীবনে অনেক সাফল্য আসুক এই আশা করবো।

সম্পূর্ণা– অসংখ্য ধন্যবাদ তোমাদেরকেও!