দ্বিতীয় বিবাহের সমাপ্তি ঘটিয়ে আজ থেকে নতুন পথে শ্রাবন্তী

দ্বিতীয় বিয়েও ভেঙে গেল টলি নায়িকা শ্রাবন্তীর। আলিপুর আদালতের জেলা বিচারক রবীন্দ্রনাথ সামন্ত নায়িকা শ্রাবন্তী চ্যাটার্জি ও মডেল কৃষান ভিরাজের ডিভোর্সের আবেদন মঞ্জুর করেছেন। ২০০৩ সালে পরিচালক রাজীব বিশ্বাসের সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল সদ্য যৌবনে পা দেওয়া শ্রাবন্তীর। কিন্তু রাজীব একাধিক মহিলার সঙ্গে প্রণয়ঘটিত ব্যাপারে জড়িত , শ্রাবন্তীর উপর অত্যাচার করে এই অভিযোগ আনায় তাঁর সঙ্গে বিচ্ছেদ হয় শ্রাবন্তীর। তাঁদের একটি পুত্র সন্তানও আছে। অভিমূন্য চ্যাটার্জ্জী। মায়ের পদবী ব্যবহার করেন পুত্র । এর বেশ কিছুদিন পর প্রেমে পড়েন শ্রাবন্তী মডেল কৃষানের। ২০১৬ সালে কৃষান ভিরাজকে বিয়ে করেন অভিনেত্রী। একটি বিজ্ঞাপনের কাজে গিয়ে মুম্বইয়ের মডেল কৃষান ভিরাজের সঙ্গে আলাপ হয় শ্রাবন্তীর। পরিচয়ের প্রায় দেড় বছর বাদে বিয়ে করেন তাঁরা। তারপরই বনিবনা হয়না। ডির্ভোসের জন্য আর্জি করেন শ্রাবন্তী-কৃষাণ।

শ্রাবন্তী বলেন ‘বাইরের লোক যে যাই বলুক, আমি তো জানি কারও সঙ্গে কেন সংসার করতে পারিনি। বাইরের লোক কি বললো, তা নিয়ে আর ভাবি না। তারা কেউ আমার সন্তানকে বড় করবে না। একটাই জীবন। সৎ পথে কাজ করলে ভগবান পাশে থাকবেনই। দুজনে মিলেই সিদ্ধান্ত নিয়েছি বিচ্ছেদের। বনিবনা না হলে একসঙ্গে মিথ্যা সুখে থাকার কী লাভ। আমার কোনো অভিযোগ নেই আমার প্রাক্তন স্বামীর বিরুদ্ধে। আমি চাই, আমার সঙ্গে না হোক , কিন্তু সে যেন ভালো থাকে।’