রোমিতা আজও ইভটিজিং র শিকার হন !

রোমিতা

তুপর্ণ ঘোষের ‘দহন’। কলকাতা শহরের এক সত্য ঘটনা অবলম্বনে ছবি। যার দুই কেন্দ্রীয় চরিত্রে দুই নারী। রোমিতা আর ঝিনুক। রোমিতাকে টালিগঞ্জ মেট্রো স্টেশনে ইভটিজার দের হাত থেকে কৃষ্ণের মতো একমাত্র বাঁচিয়েছিল এক নারী ঝিনুক। কোনো পুরুষ কৃষ্ণ হয়ে সেদিন এগিয়ে আসেনি তাঁর পাঞ্চালীর লাজ নিবারনে। যে ছবি জাতীয় পুরস্কার এনে দেয় দুই নায়িকা ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত ও ইন্দ্রাণী হালদার কে। তারপর অনেক অনেক ছবি অনেক অনেক খ্যাতি অনেক অনেক পুরস্কার। ঋতুপর্ণা এখন প্রযোজিকাও। সদ্য রোমিতা ঋতুপর্ণা সংবাদমাধ্যমকে জানালেন ” ইভটিজিং এর শিকার হচ্ছি আমি আজও প্রতিনিয়ত। রোমিতা চরিত্র করার পর আজও এ নিয়মের ব্যতিক্রম নেই। তারকা হবার খ্যাতি-তে নয়। একজন মহিলা হিসেবেই ইভটিজিং র শিকার হতে হয় আজও হামেশাই। সবসময় ইভটিজিং র স্বীকার হচ্ছি।” তাহলে কি সুচিত্রা ভট্টাচার্যর লেখা ‘দহন’ এর এত বছর পরও পরিস্থিতি বদলাল নাহ। ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত একজন খ্যাতনামা নায়িকা, সমাজ সেবিকা, প্রথমা নারীদের প্রতিনিধিত্ব করেন। তারপরও! তাহলে সাধারন মেয়দের নিরাপত্তা কোথায়?

প্রশ্নচিহ্নের মুখে দাঁড় করিয়ে দেয় এই ঘটনা!

ঋতুপর্ণার নতুন ছবি নির্মল চক্রবর্তীর পরিচালনায় ‘দত্তা‘ র শ্যুটিংর প্রথমার্ধ্ব শেষ হল বোলপুরে। আসছে উইন্ডোজের ‘বেলা শুরু‘ যাতেও ঋতু। সঙ্গে রয়েছে রিঙ্গোর নতুন ছবি এবং অঞ্জন চৌধুরী পুত্র সন্দীপ চৌধুরী র নতুন ছবি। পুলিশ অফিসারের চরিত্রে ঋতুপর্ণার নতুন চমক। রজনী উপন্যাস নিয়ে আসছে ‘আমার লবঙ্গলতা‘। যার নামভূমিকায় ঋতুপর্ণা।