মৃত্যুর থাবা থেকে সুস্থ হয়ে ফিরলেন সৌমিত্র দৌহিত্র রণদীপ বসু

রণদীপ
দেড় বছর আগে ঘটে এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা। ২০১৭ সালের ৩ মার্চ৷ ওইদিন মধ্যরাতে বাইক দুর্ঘটনায় গুরুতর জখম হন রণদীপ দক্ষিন কলকাতার নিউ আলিপুরে। একটি ডিভাইডারের সঙ্গে ধাক্কা লেগে রণদীপের বাইকটি নিয়ন্ত্রণ হারায়।  বিশাল ভাবে আহত হন ও কোমায় চলে যান রণদীপ। রনদীপ সম্পর্কে অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের নাতি। সৌমিত্র দুহিতা পৌলমী বসুর পুত্র। রণবীর একজন সপ্রতিভ অভিনেতা তিনি তা ‘এগারো’ ,’দত্ত ভার্সেস দত্ত’,’ক্ষত’ ছবি দিয়েই প্রমাণ করেছেন। শেষ কাজ করেছিলেন রিংগোর ছবিতে। মল্লিকবাজারের ইনস্টিটিউট অফ নিউরো সায়েন্সে ভরতি করা হয় তাঁকে৷ মাথায় অস্ত্রোপচার করা হয়৷ কিন্তু তাতে রণদীপের শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হয়৷ কোমায় আচ্ছন্ন হয়ে যান উঠতি অভিনেতা৷ কোনওদিন শারীরিক অবস্থা একটু ভাল আবার কোনওদিন খারাপ, এভাবেই কেটে যায় ৮৪ দিন৷ যমে-মানুষে টানাটানির পর আপাতত কিছুটা সুস্থ রণদীপ৷ সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় রণদীপের সঙ্গে একটি ছবি শেয়ার করেন পরিচালক রিংগো ব্যানার্জ্জী।
রিঙ্গো লিখেছেন, “প্রমাণ হল যে ভগবান আছেন। আমার মেসি, আমার বিজেন সেনাপতি, রণ ফিরে এসেছে। খুব তাড়াতাড়ি সুস্থ হয়ে উঠছে। আবার ও মঞ্চে ফিরবে।” দেড় বছর লড়াই করে মৃত্যুর গ্রাস থেকে হাসতে হাসতে ফিরলেন সৌমিত্র দৌহিত্র রণদীপ। অবশ্যই ওঁর পাশে সবসময় যিনি ছিলেন তিনি রণবীর জননী পৌলমী বসু। যিনি মনের জোর হারাননি। সঙ্গে ছিলেন দাদু সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় ও তাঁর পরিবার। রিংগোর হাত ধরে লড়াকু রণবীর কলকাতার মেসির কামব্যাক হল আজ। এক মা ফিরে পেলেন মৃত্যুর গ্রাস থেকে তাঁর সন্তানকে।