কিশোরকুমার জুনিয়র ! ভক্তের গুরুদক্ষিণা ?

রাজেশ

১৯৮৭সাল। দেশের বহু ভক্তকে কাঁদিয়ে চলে গেলেন কিশোর কুমার। রাজেশ খান্নাদের মত বহু অভিনেতাকে হিট বানিয়ে দিয়েছিলেন যিনি, তিনিই শেষ বয়সে বঙ্গের হাতে তুলে দিলেন নতুন এক নায়ককে৷ যিনি পরবর্তী ২৫ বছর ধরে ইন্ড্রাট্রি শাসন করবেন৷ ঠিক এক বছর আগেই সুজিত গুহ বানালেন ‘অমর সঙ্গী’। সিনেমা হিট তো বটেই সাথেই সুপার ডুপার হিট সং গাইলেন কিশোরকুমার৷ ‘চিরদিনই তুমি যে আমার..” যা এখনো বাঙালির চিরকালীন প্লেলিস্টে রয়ে গেছে। অমর সঙ্গীর অমর গান। আর সেই গানই হয়ে গেল প্রসেনজিতের ট্রেডমার্ক। গানটা শুনলেই চোখের সামনে ভেসে ওঠে প্রসেনজিতের স্লো মোশনে দৌড়ানোর দৃশ্য৷ নাহ এরপর কিশোরকুমারের গানে আর লিপ দেওয়া হয়নি তাঁর। কিন্তু পরিচিতিটা পেয়ে গেছেন ওই গানেই।

এরপর গঙ্গার জল বহু বয়ে গেছে। শেষ পর্যন্ত প্রসেনজিৎকে আমার ফিরে আসতে হল কিশোরকুমারের কাছে। নাহ অভিনেতা হিসাবে নয়। এক কিশোরকন্ঠী গায়ক হিসাবে। সমস্ত ‘কন্ঠী’ শিল্পীদের নিয়ে ইন্ড্রাট্রির মধ্যেও আরেকটি ইন্ড্রাস্ট্রি রয়েছে। যারা নিজেদেরকে গুরুদেবের সেবায় নিয়োজিত করেছে। কৌশিক গাঙ্গুলি তার সিনেমায় সেইসব ভক্তদের নিয়ে কথা বলেছেন। ১৮টা কিশোরকুমারের রিমেক গান রয়েছে ‘কিশোরকুমার জুনিয়র‘এ। অর্থাৎ পুজোয় আমরা আবার ফিরে পাবো কিশোরকুমারকে। যে কিশোরকুমার হিট নায়ক বানিয়ে দিয়েছিলেন প্রসেনজিৎকে। এই অভিনয়ের মাধ্যমে তিনিই হয়ত গুরুদেবকে গুরুদক্ষিণা দিলেন অন্যভাবে।

Writen By – শোভন নস্কর