অকালবোধনেরও ‘অকালবোধন’ করলেন সৃজিত!

পুজো। শব্দটা শুনলেই আপামর বাঙালির মনে দোলা দিয়ে যায় শরতের আকাশ, ঝরা শিউলি আর কাশফুল, ঢাকের বাদ্যি আর উৎসব উৎসব গন্ধ। দুর্গাপুজো, মানে বাঙালির মেয়ে উমার বাপের বাড়ি ফেরা। আর এই নস্টালজিয়াটাই সৃজিত মুখার্জির মুনশিয়ানায় ফুটে উঠতে চলেছে বড়পর্দায়। যেখানে বাঙালির মেয়ে উমার বাড়ি ফেরা দেখতে, বাড়ি ফিরে আসে এক প্রবাসী বাঙালির মেয়ে উমা। কিন্তু… না, শরতে নয়। ঘোর বসন্তে। কারণ তার হাতে সময় বড্ড কম..

আর তারপর অকালবোধনেরও অকালবোধন করার কথা ভাবেন উমার বাবা, যিনি ব্যক্তিগত জীবনের যন্ত্রণায় দীর্ন। তবু মৃত্যুপথযাত্রী মেয়ের ইচ্ছে পূরণ করতে অসম্ভবকে সম্ভব করার কথা ভাবতে যাঁর বুক কাঁপে না। একা হাতে কলকাতাকে পুজোর মতো করে সাজিয়ে তোলার কথা ভাবেন তিনি। আর সে কাজে শেষ অব্দি দ্বারস্থ হতে হয় এক ব্যর্থ পরিচালকের…

Uma Trailer Launch

অনেকগুলো পরত জুড়ে যে এই ছবির বিস্তার, ট্রেলার দেখেই সেটা স্পষ্ট বোঝা যায়। প্রতিটা চরিত্রের ছোটো ছোটো আলাদা আলাদা গল্পগুলো এসে মিলে যাওয়ার থাকে এক জায়গায়। আর সে জন্যই কৌতূহল আরও বেড়ে যায় ট্রেলারের পর। সামান্য কয়েক সেকেণ্ডে যিশু বা অঞ্জনের উপস্থিতি তো মুগ্ধ করেই, যোগ্য সঙ্গত দিয়েছে রুদ্রনীল-অনির্বাণ-বাবুল সুপ্রিয়-সায়ন্তিকাদের অভিনয়ও। সঙ্গে উপরি পাওনা যিশুর মেয়ে সারা-র ডেবিউ।

শেষ অব্দি বাবা-মেয়ের গল্পের হ্যাপি এণ্ডিং হয় কী না, কিম্বা সবার গল্পগুলোই আসলে শেষ হয় কিনা নিজের নিজের মতো করে, দেখতে হলে সিনেমামুখী হতেই হবে। হাজার হোক, পরিচালক যে সৃজিত মুখার্জি!