এই শর্টফিল্মের গল্প আপনাকে ভাবাবে অবশ্যই..

যদি ভেবে থাকেন পরিচালকেরা কেবল দর্শকদের মনোরঞ্জনের উদ্দেশ্যেই ছবি বানিয়ে থাকেন তাহলে এবার হয়তো আপনার ভাবাবেগে পেরেক পোতার সময় এসে গেছে। কারণ কিছু পরিচালক এমনও আছেন যাদের কাছে মনোরঞ্জন বা কমার্শিয়াল স্পেস এর চেয়েও সমাজ সচেতনতা বেশি গুরুত্ব পায়। যদি পরিচালক তথাগত ঘোষ’র কথাই ধরি, তাহলে তিনি বেশ আদর্শ এই ক্যাটাগরিতে। মূলত ইনি একজন ইন্ডিপেন্ডেন্ট শর্টফিল্ম মেকার। হয়তো ফিল্ম মেকিংয়ের বানিজ্যিক জায়গাটা ঠিক ভাবে রপ্ত করতে পারেননি তবে সমাজ সচেতনতাকে হাতিয়ার করে কোপ বসিয়েছেন মানুষের মনে।

আবারও সেই উদ্দেশ্যে নিয়েই তিনি হাত রেখেছেন তাঁর পরবর্তী ছবি ‘দৈত্য’র ওপর। এটিও একটি স্বল্প দৈর্ঘ্যের ছবি। শতাফ ফিগার, সৌম্য মজুমদার, আরিয়ন রায়, বিমল গিরি এবং পায়েল রক্ষিত’দের নিয়ে তৈরি হয়েছে ছবির কাস্টিং ব্রিগেড। ছবির গল্প লিখেছেন পরিচালক নিজেই।

আরও পড়ুন : সিক্যুয়েল আসছে ১৫’র এই ব্লকবাস্টার সিনেমার?

তিনি জানাচ্ছেন, এটি একটি সাইকোলজিক্যাল থ্রিলার। হালফিলের মানুষ যেসব অরাজকতার স্বীকার হয় তার মধ্যে পুলিশী অতৎপরতা অন্যতম। মাঝে মধ্যেই সমাজ রক্ষকদের অতৎপর ভঙ্গি বেকায়দায় ফেলে দেয় আমজনতাকে। পরিচালক নিজেও যেহেতু একজন সাব-উর্বান শহর থেকে উঠে এসেছেন তাই এইসব ব্যাপার তাঁর চোখের সামনে হামেশাই ঘটে গেছে। এবার এই সত্যের উদ্ঘাটন করে মানুষের মনে সচেতনতা তুলে ধরতে চান তিনি। এবার বরং আপনারাই ভেবে দেখুন মনোরঞ্জন নাকি সচেতনতা কার সাথে আপোষ করে নেবেন ?