২০১৭’তে বাংলা সিনেমার এই চরিত্রগুলো আপনাদের মনে দাগ কেটেছে অবশ্যই!

“কক্ষপথে ঘুরে যাব তোমারই চারপাশে/ আমার বছর ফুরোবে না মাত্র বারো মাসে…”, কবীর সুমনের এই কথা ধার করে বলা যায় ২০১৭’র অন্তিম মুহূর্তে আমরা দাঁড়িয়ে থাকলেও আমাদের কাছে যা স্মরণীয় তার সময়সীমার বৈধতা কয়েকটা সংখ্যা দিয়ে বিচার করা যায় না! আজকে আপনাদের কাছে থাকল এমন কিছু চরিত্র যেগুলো ২০১৭তে বাংলা সিনেমাতে সবথেকে প্রভাব ফেলেছে দর্শকদের মনে, এই অভিনেতা-অভিনেত্রীদের নাম বাংলা সিনেপ্রেমীদের স্মরণীয় হয়ে থাকবে ২০১৭’র সেরা প্রাপ্তি হিসেবে, দেখে নিন তার তালিকাটা-

অনির্বাণ ভট্টাচার্য- এই বছরের সবথেকে বিতর্কিত সিনেমা “ধনঞ্জয়”র মূল চরিত্রাভিনেতা। দর্শকদের কাছে চরিত্রের বিশ্বাসযোগ্যতা তৈরি করাই একজন অভিনেতার মূল দায়িত্ব আর সেই দায়িত্বে ধনঞ্জয় ওরফে অনির্বাণ দেখিয়েছেন কতো বড় মাপের অভিনেতা উনি, আশা করা যায় ২০১৮তেই সেই ঝলক বারবার দেখাবেন অনির্বাণ।

সুদীপ্তা চক্রবর্তী- সুপরিচিত এই অভিনেত্রীকে মানুষ অবশ্যই মনে রাখবেন “ধনঞ্জয়”তে ওনার করা সুর্ভি পারেখের চরিত্র। ওনার অভিনয় চমকে দিয়েছে সকলকেই তাই দর্শকরা অবশ্যই মনে রাখবেন এইরকম একটা ক্ষুরধার চরিত্রে নিজেকে ফুটিয়ে তোলার জন্য।

ঋত্বিক চক্রবর্তী- এই বছর বাঙালিরা কবজি ডুবিয়ে “মাছের ঝোল” খেয়েছেন যার অনেকটা কৃতিত্ব যায় ওনার অভিনয় দক্ষতার উপর। বিদেশ ফেরত বাঙালি দেভদত্ত’র চরিত্রে একদম ছয় মেরেছেন ঋত্বিক, বাঙালি অবশ্যই মনে রাখবেন ওনার অভিনীত এই চরিত্রকে।

সোহিনী সরকার- বাংলা সিনেমার অন্যতম শক্তিশালী অভিনেত্রীদের মধ্যে সোহিনী একজন। জুলাইতে রিলিজ হওয়া “দুর্গা সহায়”তে দুর্গার ভূমিকাতে এই বছরের সেরা অভিনয়টা করেছেন সোহিনী। দর্শকরা ভালোবেসে আপন করে নিয়েছে এই দুর্গাকে।

কৌশিক গাঙ্গুলি- জাতীয় পুরষ্কার প্রাপ্ত সিনেমা  “বিসর্জন” দেখেন নি এরকম বাঙালি খুঁজে পাওয়া মুস্কিল। পরিচালক হলেও কৌশিকবাবু একজন অসাধারণ অভিনেতা যার প্রমান আমরা আগেও পেয়েছি। গনেশ মণ্ডল তার একটা প্রমান। “বিসর্জন”র এই চরিত্র মানুষ অনেকদিন মনে রাখবেন।

কোয়েল মল্লিক- অনেকদিন অবসরে থাকার পর টলিপাড়াতে এন্ট্রি নেন অভিনেত্রী কোয়েল মল্লিক। “ছায়া ও ছবি”তে তাঁর অভিনয় দেখে সকলেই সাধুবাদ থেকে বোঝা যায় মাঠে নেমেই ছয় মেরেছেন অভিনেত্রী। রাই চ্যাটার্জি’র চরিত্র মানুষ অবশ্যই মনে রাখবেন ২০১৭’র বাংলা সিনেমার স্মৃতিতে।

অর্ঘ্য বসু রায়- আপনাদের নিশ্চয়ই মনে আছে ছোট্ট “পোস্ত”কে। রিলিজের পর মিডিয়ার লাইম লাইট কেড়ে নিয়েছিল এই  ছোট্ট অর্ঘ্যের অভিনয়। এই খুদে সেলেব অবশ্যই ২০১৭’র বাংলা সিনেমার পাতাতে নিজের জায়গা করে নিয়েছে ইতিমধ্যেই।

সামি-উল-আলম এবং নুর ইসলাম- এই বছরের সেরা দুই আবিষ্কার! “সহজ পাঠের গপ্পো”তে শুধু মানুষের মন জয় করে নি, ছিনিয়ে নিয়েছে জাতীয় পুরষ্কারও! এই দুই খুদের সরল অভিনয় মন জয় করে নিয়েছে আপামর বাঙালির।

এছাড়াও অনেক অভিনেতা-অভিনেত্রী বড় ছোট বিভিন্ন চরিত্রে নিজেদের অভিনয় দক্ষতা প্রমান করে গেছেন। প্রত্যেকেই মুখিয়ে আছেন আগামী বছরে আরও চ্যালেঞ্জিং এবং চমকপ্রদ চরিত্র বাংলা সিনেমার দর্শকদের উপহার দেওয়ার জন্য, আমাদের অনেক শুভেচ্ছা এবং ভালোবাসা থাকলো টলিপাড়ার সমস্ত অভিনেতা-অভিনেত্রীদের। আপনারা থাকুন বাংলা সিনেমার পাশে এবং অবশ্যই চোখ রাখুন গুলগাল’এ।