“অঞ্জন দত্ত-সৃজিত-দেব”, এই ত্রয়ীর যোগসূত্রটা জানলে অবাক হবেন অবশ্যই!

সৃজিত মূখার্জী – তিনি পরিচালক, তিনি গল্পকার, তিনি চিত্রনাট্যকার এবং সব বিশেষণ মিলিয়ে তিনি একজন ‘স্টোরি টেলার’। সৃজিত প্রেমীদের একথা অজানা নয় যে নিজেকে স্টোরি টেলার বলতেই বেশি স্বচ্ছন্দ্য বোধ করেন তিনি। এবং এই সব কিছুরই মেল বন্ধন – বাংলা সিনেমা। যদিও সৃজিত মূখার্জী নামটা এখন আর শুধু বাংলায় আটকে নেই। ‘বেগমজান’ এর হাত ধরে বলিউডে পা রাখেন সৃজিত, আসতে চলেছে তার পরিচালনায় হিন্দি ওয়েব সিরিজ ‘মহাভারত মার্ডারস’।

এইসব কিছু তো গেল ক্যামেরার ওপারের কথা। কিন্তু ক্যামেরার এপারে সৃজিতের অ্যক্সসেপটেন্স নেহাত কম কিছু নয়, বরং খুবই ভালো। বেশ কয়েকটা ছবিতে গেস্ট অ্যপিয়ারেন্স হিসাবে দেখা মিলেছে সৃজিতের। কিন্তু একই দিনে রিলিজ করা দুটো ছবি আর দুটোতেই কমন ফ্যাক্টর সৃজিত মূখার্জী এমনটা ঘটেছে কি? এই প্রশ্ন এতদিন সিলেবাসের বাইরে থাকলেও তা এখন বেশ চর্চিত।

গত ১৩ই এপ্রিল একই সাথে মুক্তি পেয়েছে ‘কবীর’ এবং ‘আমি আসবো ফিরে’ আর এই দুটো ছবিতেই গেস্ট অ্যপিয়ারেন্স সৃজিত মূখার্জী। তাই হল থেকে বেরনো দর্শকের মুখে শোনা গেল –

‘নববর্ষ যেন সৃজিতময়’

দুটো ছবি নিয়েই দর্শকের এক্সাইটমেন্ট ছিল প্রচুর। সম্পুর্ণ ভিন্ন ধারার এই দুটি ছবিই মন জয় করেছে দর্শকের। কবীর এর স্টোরি থেকে শুরু করে, অঞ্জন দত্তের নতুন ভাবে ফিরে সব কিছুই প্রশংসিত হচ্ছে লোকের মুখে মুখে। আর সৃজিত যেন মেল বন্ধন হয়ে দাঁড়িয়েছেন কবীর ও রঞ্জনার, এসভিএফ ও দেব এন্টারটেইনমেন্ট ভেঞ্চারসের।


কাকতালীয় ভাবে সৃজিতের ‘উমা’ তে দেখা মিলবে দেব ও অঞ্জন দত্ত দুজনেরই। আর এটাই বাংলা সিনেমা, যেখানে প্রযোজক, পরিচালক ও অভিনেতা একে অপরের পরিপূরক, যার মূল মন্ত্র বাংলা ছবিকে বিশ্বের দরবারে সর্বোচ্চ স্থানে পৌঁছে দেওয়া, এখানেই সে অনন্য। অতএব, বাংলা সিনেমা দেখুন, বাংলা সিনেমার পাশে থাকুন।