শেষ জীবন যুদ্ধে লড়ছেন কাদের খান

কাদের

তিনি আমাদের ভুলে গেছেন, কিন্তু তাঁকে আমরা ভুলিনি। অশীতিপর অভিনেতা কাদের খান ৷ দীর্ঘদিন স্মৃতিভ্রংশ রোগের কবলে। এবার তাঁর অবস্থা আরো আশঙ্কাজনক। তাঁকে ভেন্টিলেটর থেকে স্পেশাল ভেন্টিলেটরে রাখা হয়েছে৷ শ্বাসকষ্ট ও নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত ৮১ বছর বয়সী প্রবীণ অভিনেতা। বর্তমানে তিনি কানাডায় থাকেন৷ সেখানেই ছেলে বৌমার কাছে দীর্ঘদিন ধরেই রয়েছেন। কিছুদিন আগে কাদের খানের হাঁটুতে অপারেশন হয়৷ সেই অপারেশন সফল হয়৷ কিন্তু কাদের খান progressive supranuclear palsy (PSP) রোগের শিকার অনেকদিনই। যাতে স্মৃতিলোপ পাওয়া, ভারসাম্য হ্রাস, হাঁটতে অক্ষমতা হয়ে দাড়িয়েছে তাঁর। তাই অপরাশেন সফল হলেও হাঁটতে না পারার দরুন কোনো উন্নতি সেভাবে হয়নি। কিন্তু এখন অবস্থার অবনতি হয় নিউমোনিয়ায়। কাদের খানের চিকিৎসায় চিকিৎসকদের নিয়ে বিশেষ মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হয়েছে ৷ তবে অবস্থা ক্রমশ খারাপের দিকে এগোচ্ছে বলে ওই খবরে দাবি করা হয়েছে৷ শেষ জীবন যুদ্ধে লড়ছেন এখন কাদের খান।

কাদের খান চিত্রনাট্যকার হিসেবে বলিউডে আত্মপ্রকাশ করেন। অভিনেতা হিসেবে কাদের খান পরিচালক যশ চোপড়ার ‘দাগ‘ বিখ্যাত ছবি দিয়ে শুরু করেন। রাজেশ খান্না, শর্মিলা ঠাকুর , রাখী অভিনীত। বহু পপুলার ছবির চিত্রনাট্যকার তিনি। রেখা অভিনীত রাকেশ রোশনের ছবি ‘ খুন ভারি মাং’।তাঁর শেষ চিত্রনাট্য ‘আন্টি নং ওয়ান’। অভিনেতা কৌতুকাভিনেতা হিসেবে বেশী জনপ্রিয় ছিলেন কাদের খান। ইয়ারানা, কুরবানি, বোল রাধা বোল, জুদাই, রোটি, কুলি, রাজা বাবু, কুলি নং ওয়ান, দুলহে রাজা, হাম, কালা বাজার সহ একাধিক ছবিতে কাজ করেছেন তিনি। রাজেশ খান্না, অমিতাভ বচ্চন থেকে শুরু করে মাধুরী দীক্ষিত, গোবিন্দার ছবিতে নানাভাবে নিজেকে তুলে ধরেছেন। তার অভিনীত শেষ ছবি “হো গ্যায়া না দিমাগ কা দহি”।

আমরা অশীতিপর বর্ষিয়ান অভিনেতার আরোগ্য কামনা করি।