মুম্বাই হামলার জীবন-ছবি নিয়ে আসছে হোটেল মুম্বাই !

মুম্বাই
মুম্বাই শহরে রাত নামে না। অক্লান্ত মানুষ এই শহরে অবিরাম স্বপ্ন বুনে চলে। দুহাজার আটের ছাব্বিশে নভেম্বর দিনটাও এর ব্যতিক্রম কিছু ছিল না। রোজকার মতো স্বপ্ন শিকার করতে সারা শহর জুড়ে ঘুরে বেরিয়েছিল মানুষ। একটু নতুন জীবন নিজের সংসারের কাছে উপহার দেওয়ার জন্য গর্ভবতী স্ত্রী আর সন্তানকে ছেড়ে বেরিয়ে পড়েছিল তাজ হোটেলে নতুন অ্যাপয়েন্ড ওয়েটার অর্জুন। ক্লান্তিহীন মুম্বই শহরের বস্তি হোক বা ঝাঁ চকচকে তাজ হোটেলের বারান্দা, কোথাও এতটুকু কার্পণ্য করে নি সূর্য। ডেভিড আর জারা তাদের সদ্যজাত সন্তানকে নিয়ে সাত সমুদ্র তেরো নদী পেরিয়ে মুম্বাই-এর মাটিতে এসে দাঁড়িয়েছিল নতুন দেশ ঘুরে দেখার এক রাশ আশা নিয়ে। রাশিয়ান বিজনেস ম্যান ভ্যাসিলি তাজমহল হোটেলের নরম বিছানাতে শুয়ে ভাবতেও পারেন নি, কোনো দুর্যোগ ঘনিয়ে আসতে পারে। অর্জুন তাদের আশ্বস্ত করেছিল, তাজমহল হোটেলের বিসালের মাঝে কোনো আশঙ্কা তাদের ছুঁতেই পারবে না!
হোটেল মুম্বাইকিন্তু সবই যেন কেমন ঝড়ের আগের শান্তির মতো! আর আইকন ফিল্ম অস্ট্রেলীয়ার নতুন ছবি হোটেল মুম্বাই-এর ট্রেলার যেন সেই আশঙ্কার আগের শান্তির ছবি এঁকে চলে নিখুঁত ভাবে বেশ খানিকটা সময় জুড়ে। আর তারপর হঠাৎই নেমে আসে আঘাত। ভারতবাসী আজো ভুলতে পারে না দুহাজার আটের সেই দিন। সন্ত্রাসে আক্রান্ত মুম্বাই তাজমহল হোটেল। বোমাবাজি আর বেপরোয়া গুলি চলা। এই সব কিছুর মধ্যে বেশ কিছুটা কল্পনার জীবন মিশিয়ে আসছে ছবি হোটেল মুম্বাই। ট্রেলারে উত্তেজনা চরমে। আবহ সঙ্গীত হোক বা ক্যামেরা, হঠাৎই আঘাতের আবহ এমন ভাবে তৈরী করা হয়েছে, মনে হবে ঠিক যেন ছবি আঁকছে কেউ একমনে। অনুপম খেরঅনুপম খেরের স্ক্রীন উপস্থিতি হঠাৎই ছবি থেকে দর্শকের প্রত্যাশা বাড়িয়ে দেবে। দেব প্যাটেল বেশ অনেকদিন পর আবার বড় পর্দায়। অর্জুন নামের ওয়েটারের চরিত্রে তাকে মানিয়েছে বেশ। দেবের অভিনয় নিয়ে নতুন করে বিশ্লেষণ করার প্রয়োজন বোধহয় নেই, ট্রেলার জুড়ে যতটা প্রেজেন্স তার, বোঝা যায় হতাশ করবেন না এবারেও। বেশ আউট অফ দ্য বক্স চরিত্রে রয়েছেন ,অস্ট্রেলীয় অভিনেতা আরমি হ্যামার-ন্যাজানিন বোনিয়াডি জুটি (ডেভিড-জারা) ও জেশন আইজ্যাক (ভ্যাসিলি)।
হোটেল মুম্বাইটানটান সাসপেন্স বেশ চমকে দেয় ট্রেলার দেখার সময়ে। ছবিটি যে হাই পোটেনসিয়াল রাখে তা এক কথায় স্বীকার করতে হয়! আসলে তাজ জঙ্গি হামলার কথা আমাদের স্মৃতিতে আজো উজ্জ্বল। কিন্তু তারো পিছনে লুকিয়ে আছে অনেক সাধারণ স্বপ্ন বুনে চলা মানুষের গল্প। যাদের কথা মনে রাখে না কেউ। অথচ তাদের ছাড়া যেন সেই দিনের দুর্যোগ কাটিয়ে ওঠাই যেত না। সেই সব মানুষের গল্প বলবে হোটেল মুম্বাই। ইন্টারন্যাশান্যাল রিলিজ ডেট এখোনো ফিক্সড নয়। তবে দু-হাজার উনিশেই একটুকরো অন্য মুম্বাই-এর গল্প নিয়ে আসছে আইকন ফিল্ম অস্ট্রেলীয়া। ট্রেলার নিশ্চিত ভাবেই একসাইটমেন্ট বাড়িয়ে দেবে। অপেক্ষা থাক রিলিজ ডেটের!