একেবারে নগ্ন দৃশ্যে অভিনয় ! এমনটা কি সত্যি হয়েছে বলিউডে ?

বলিউডের নগ্ন অভিনেতা

ন্য ভাষার ছবিতে হয়ত অভিনেতারা হামেশা এ ধরনের দৃশ্য করেন। তাদের ক্ষেত্রে এটা স্বাভাবিক ব্যাপার। কিন্তু বলিউড এর কোন অভিনেতা যখন করেন, তখন তা আলোচনার বিষয় হয়ে দাড়ায়। সেখানে অনেক সময় সেন্সর বোর্ড কাঁচি চালিয়ে সে সব দৃশ্য কেটে দেন, যদি না উপযুক্ত কারণ থাকে। তবুও অনেক সময় এসব দৃশ্য ছবির কাটতি বাড়িয়ে দেয়, আগ্রহ বাড়ায় দর্শক মনে। বলিউড এর তেমনি কিছু ছবিতে নায়ক বা অভিনেতাদের সম্পূর্ণ কাপড় ছাড়া অভিনয় করতে দেখা গেছে। যদিও ক্যামেরার কারসাজী তে স্পর্শ কাতর অংশ দেখানো হয়নি, তবুও কারাগারের দৃশ্য গুলোতে এ ধরনের অভিনয় করতে হয়েছে অনেক অভিনেতাদের। নিচে তেমন কিছু মুভি সম্পর্কে আলোচনা করা হল।

নিউইয়র্ক সিনেমায় জন আব্রাহামনিউইয়র্ক  : ২০০৮ সালে মুক্তি পেল কবির খান পরিচালিত মুভি নিউইয়র্ক। সেখানে জন আব্রাহাম কে মুসলিম টেররিস্ট হিসেবে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। একসময় অন্ধকার রুমে আটকে রাখে তাকে, সেখানে জন ছিলেন পুরো ন্যুড। যদিও আলো আধারিতে তেমন বোঝা যায়নি।

জেল  : ২০০৯ সালে মধুর ভান্ডারকার পরিচালিত জেল ছবিতে নীল নিতিন মুকেশ অভিনয় করেন সবচেয়ে সাহসী ন্যুড দৃশ্যে। একারনে ছবিটি আলোচনায় আসলেও, ব্যবসায়িক ফলাফল ফ্লপ।

জেল ছবিতে নীল নিতিন মুকেশ

রাং_দে_বাসান্তী  : ২০০৬ সালে রাকেশ ওমপ্রকাশ মেহরা পরিচালিত এই মুভিতে কুনাল কাপুরকে ন্যুড দেখানো হয় কারাগারে। যদিও ছবির ব্যবসায়িক সাফল্যে এ দৃশ্যএর কোন ভূমিকা ছিল না।

এই মুভিতে কুনাল কাপুরকে ন্যুড দেখানো হয় কারাগারে।

শাহীদ  : ২০১২ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত এই মুভিতে মানবাধিকার আইনজীবী শহীদ আজমির চরিত্রে অভিনয় করেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জেতেন রাজ কুমার রাও। ছবিতে নগ্ন হবার বিষয় এ তিনি বলেন, তিনি মুভিতে ওই আইনজীবীর মানসিক যন্ত্রণা অনুভব করতে এ ধরনের দৃশ্যএ অংশ নেন।রাজ কুমার রাও সিনেমা শাহিদ

সঞ্জু : ২০১৮ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত রাজকুমার হিরানী পরিচালিত আলোচিত ও ব্যবসাসফল ছবি সাঞ্জু তে রনবির কাপুর কারাগারে ন্যুড দৃশ্যএ অভিনয় করেন, যদিও তার প্রথম ছবি সাওয়ারিয়াতে দর্শক তাকে লাভার বয় হিসেবে দেখেছে, তবুও এ ধরনের দৃশ্যে তার অভিনয় সঞ্জয় দত্তের ভক্তদের মনে তার জন্য সহানুভূতি র সৃষ্টি করে।

রণবীর কাপুর সঞ্জু ও সাওয়ারিয়া সিনেমাতে