অন্ধাধুন নাকি রিলিজই হত না ! কেন জানেন ?

সিনেমা

শ্রীরাম রাঘবন। বর্তমান বলিউডের অন্যতম বড় ডিরেক্টর। জনি গদ্দার, বদলাপুর, অন্ধাধুনের মত সিনেমা বানিয়েছেন। কিন্তু রিসেন্টলি উনি একটা ইন্টারভিউতে জানালেন অন্ধাধুন নাকি রিলিজই হচ্ছিল না! সিনেমা বানানোর পর ভায়াকম ১৮ কে যখন এডিটিং এর জন্য পাঠানো হয় তখন প্রোডিউসাররা বলেন এ সিনেমার শেষটা কেউ কিছু বুঝতে পারবে না। সুতরাং শ্রীরামকে অনুরোধ করা হয় এন্ডিংটা পাল্টানোর জন্য। অন্ধাধুনপরিচালক সেই নির্দেশ মানেননি। বহুদিন আগেই এক শিকারির অন্ধ খরগোশ ধরার গল্পটা শুনেছিলেন। চেয়েছিলেন গল্পের শুরু এবং শেষ ওখানেই যেন হয়৷ যেহেতু এটা কম বাজেটের সিনেমা তিনি প্রোডিউসারকে অনুরোধ করেন পরীক্ষানিরীক্ষা চালাতে। এরপর ভায়াকম সিনেমাটার প্রচার কমিয়ে দেয়। সেভাবে প্রচারও পায়নি অন্ধাধুন। তারা ভেবেই নিয়েছিল সিনেমাটা কেউই বুঝবে না। কিন্তু শুধুমাত্র লোকের মুখে বা ক্রিটিক্সের মুখে মুখেই সিনেমার প্রচার হয় এবং ৭০কোটি টাকা আয় করে। এখানেই শেষ নয়। গল্পের জটিলতার কারণে অনেক নায়কই পিছিয়ে আসে অভিনয় করা থেকে। পরে একদিন আয়ুষ্মান নিজেই পরিচালককে ফোন করে রোলটা চেয়ে নেন। এইবছরের অন্যতম সেরা এবং সর্বকালের সেরা বলিউড থ্রিলার হিসাবে জায়গা করে নিয়েছে অন্ধাধুন। তবে টাবু সিনেমাতে প্রথম থেকেই ছিলেন। চরিত্রটিও টাবুকে ভেবেই লেখা।টাবু অন্ধাধুন সিনেমা