হঠাৎ খবর, এখনও কদলী দেবীরা বেঁচে আছেন!

তাহলে আবারও কি মানুষরায় ভারী পড়বে ভূতের ওপর নাকি রূপকথার গল্প মিলিয়ে বাজিমাত করবে অশরীরী আত্মার দল ?

আর কোথাও শোনা না গেলেও বাংলায় ভূত নিয়ে টানাটানি বেশ সুদূরপ্রসারী। সাধারণ মানুষরা না হয় দূরেই থাক। ভৌতিক কৌতুহলে সামিল হয়েছিলেন রবীন্দ্রকালীন সাহিত্যিক’রাও। বর্তমানে আধুনিক আচার আচরণ বাংলাকে ছুঁয়ে গেছে ঠিকই, কিন্তু ভূতের ব্যামো বাঙালিদের মনে আজও বিরাজমান। ‘ভূত’ শব্দটি কানে আসা মাত্রই গতানুগতিক একটি চিত্র সকলেরই চেনা। ছিপছিপে চেহারা সঙ্গে রক্তাক্ত কালিমা। অন্তত রূপকথার পাতা আলাপ করিয়েছিলো এরকমই একটি চরিত্রের সঙ্গে। সম্প্রতি যখন সবকিছুই পাল্টেছে, তখন জিজ্ঞাসার দাগটা ভূতের ওপরও টানা যায়। ভবিষ্যতের ভূত কেমন দেখতে তা আমাদের আগেই জানিয়েছিলেন পরিচালক অনীক দত্ত। প্রোমোটার আর কন্সট্রাকটারদের জ্বালায় পোড়ো বাড়ি আর জোটে না ভূতেদের জন্য। মানুষের দাপটে তারা আর যাবেই বা কোথায়। ভূতের ভবিষ্যৎ অবস্থা নিয়ে এরকমই একটি গল্প বেঁধেছিলেন পরিচালক অনীক দত্ত। সৌজন্যে তাঁর ছবি ‘ভূতের ভবিষ্যৎ’।

আরও পড়ুন : মেঘলা আকাশ সঙ্গে বজ্রপাত! রিস্কটা নিয়েই নিলেন দেব…!

হাতে গোনা কটা দিন আগেই বড়োপর্দায় পা রেখেছে তাঁর আরও একটি ছবি ‘মেঘনাদ বধ রহস্য’। সবশেষে হাত-পা ঝেড়ে আবার কলম ধরলেন নতুন কাজে। পরিচালকের কথা মতো গল্পের স্ক্রিপ্টও প্রায় শেষের দিকে। গত কয়েকবারের সঙ্গে তাল মিলিয়ে এবারের নিত্য নতুন ভূতের সাথে পরিচয় করাবেন পরিচালক। ছবির নাম আপাতত ঠিক না হলেও শোনা যাচ্ছে এটি ‘ভূতের ভবিষ্যৎ’ ছবিরই একটি সিকুয়েল। তাহলে আবারও কি মানুষরাই ভারী পড়বে ভূতের ওপর নাকি রূপকথার গল্প মিলিয়ে বাজিমাত করবে অশরীরী আত্মার দল ?