আমির খানের কিছু অজানা কথা !

অজানা আমির খান

আমির খান। বর্তমানে বলিউডের অন্যতম বিষ্ময়। যাতে হাত দেন তাতেই সোনা। সে থ্রি ইডিউটস হোক বা সিক্রেট সুপারস্টার। ভারতে নায়কের পরিচিত মডেল টা তিনি ভেঙে ফেলে দিয়েছেন একার হাতে। আমির খানের সিনেমাই সম্ভবত হয় যেটা ক্রিটিক্স এবং দর্শক দুজনেরই ভাল লাগে।

চলুন জেনে নেওয়া যাক এই বিস্ময় প্রতিভার কিছু অজানা দিক।

* আমির খানের বাবা প্রোডিউসার হলেও কোনদিন চাননি তাঁর ছেলে এই প্রফেশনে আসুক। আমির জোর করেই আসেন এবং ১২ পাশ করার পর আর পড়েননি।

* ১২ পাশ করলেও আমির খান বলেন যে, তারপরেই তিনি পড়াশোনা শুরু করেন বাড়ীতে। সিনেমা থেকে ফিজিক্স সব সাবজেক্টই পড়তেন।

Aamir Khan Playing Rubik's Cube* র‍্যাঞ্চোর হাতে রুবিক্স কিউব দেখেছিলেন। বাস্তবেও আমির এই খেলায় খুব পটু। মাত্র ২৮ সেকেন্ডে কিউব পাজলের সমাধান করে দিতে পারেন। এছাড়া পিয়ানো বাজাতেও দক্ষ।

* করণ অর্জুন, রোবোট, ডরের মত সিনেমাতে তিনি অভিনয় করেননি। শুধুমাত্র তাঁর মনে হয়েছিল যে এই চরিত্রটা তার জন্য নয়। এমনকি রজনীকান্ত তাকে অনুরোধ করেছিলেন রোবো ২ তে রজনীর জায়গায় অভিনয় করতে। আমির বলেন , এই চরিত্রে রজনী স্যর ছাড়া কাউকে ভাবা যায় না।

Aamir Khan At cinema Hall* তাঁর সিনেমা রিলিজ হওয়ার আগের দিন রাতে কোন থিয়েটারের প্রজেকশন রুমে শুয়ে থাকেন। ফার্স্ট ডে ফার্স্ট শো তে দর্শকদের রিয়াকশন দেখতে তিনি পছন্দ করেন। আজও একই কাজ তিনি করে যান।

Aamir Khan Cinema* গজনী, থ্রি ইডিউটস, দঙ্গল বলিউডের প্রথম ১০০, ৩০০, ৫০০ ক্লাবের মুভি ।

* এত কিছু স্বত্বেও আমির খান বলেন তিনি কখনও দর্শকদের কথা ভেবে সিনেমা করেননা । তাহলে নাকি লগান সিনেমাটাই হত না ! কারন কোন প্রডিউসার বা অভিনেতা ধুতি পড়ে খালি পা ওয়ালা নায়কযুক্ত সিনেমার ওপর ভরসা করতে পারতেন না।

* অনেক পড়ুয়া হলেও মাত্র একটা বই নিয়ে তিনি সিনেমা করার কথা ভেবেছিলেন তা হল ‘মহাভারত’ ।

* তাঁর সত্যমেব জয়তে অনুষ্ঠানে আমির খান অভিনীত কোন বিজ্ঞাপন ছিল না। শুধুমাত্র ইনক্রেডেবল ইন্ডিয়া ছাড়া। মহারাষ্ট্রে তাঁর নিজস্ব জলের ফাউন্ডেশন আছে।

* দর্শকদের ভালবাসাই তাঁর কাছে সব। একসময় অ্যাওয়ার্ডের জন্য হামলে পড়লেও এখন আর যাননা। যে সিনেমা তাকে সন্তুষ্টি দেয় শুধু সেটাই করেন।

* বলিউড সিনেমা খুব কম দেখেন। কিন্তু ইন্ড্রাস্ট্রির নানা বন্ধুদের অনুরোধে স্পেশাল স্ক্রিনিং দেখেন। তার আগে বন্ধুকে বলে দেন মিডিয়াকে না জানাতে যে তিনি ওই সিনেমাটা দেখেছেন। কারণ খারাপ লাগলে তিনি মিডিয়ার সামনে মিখ্যা বলতে পারবেন না। ভাল লাগলে তিনি অবশ্য টুইটারে উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করতে ভোলেন না। বজরংগী ভাইজান বা রোবোট বার হওয়ার পর এমন প্রশংসা করেছেন বার বার।

Written By – শোভন নস্কর