একটি জোকারের গল্প !

হিথ

স্ট্রেলিয়ার পার্থে একটা ছটফটে বাচ্চা। দাবা থেকে শুরু করে হকি, ক্রিকেট, ফুটবল সবেতেই সে দক্ষ৷ মাত্র এগারো বছর বয়সে বাবা মার ডিভোর্স হয়ে গেল। অসহায় ছেলেটির মাথায় হঠাৎ অভিনয় ভর করেছে৷ স্কুলে এক গাধার চরিত্রে অভিনয় করে তাক লাগিয়ে দেয়। তার অভিনয়ের নেশা এতটাই পেয়ে যায় যে হকি ছেড়ে দিদির থিয়েটারের দলে ঢুকে যায়৷হিথ লেজারসোয়াট বলে একটা টিভি সিরিয়ালে প্রথম সুযোগ পান সাইক্লিস্টের ভুমিকায়। তারপর আমেরিকায় যান। ছোট খাটো চরিত্রে অভিনয় করতে করতে ১৯৯৯ সালে ‘টেন থিংস আই হেট অ্যাবাউট ইউ‘ তে অভিনয় করেন এবং লাইম লাইটে চলে আসেন। ২০০০ সালে মেল গিবসন দ্য পেট্রিয়ট সিনেমায় ছেলের চরিত্রের জন্যে তাকে ডেকে নেন। এরপর ২০০৫ এ অ্যাং লির ব্রোকব্যাক মাউন্টেনে কাউবয় সমকামীর চরিত্রে অভিনয় করে প্রথম অস্কার নমিনেশন এবং গোল্ডেন গ্লোব হাতিয়ে নেন। তার অভিনয় প্রতিভা এতটাই ছিল কোন কিছুই তার বাধা হয়ে দাঁড়ায়নি। তিনি হলে ‘জোকার’ হিথ লেজারজোকার হিথ লেজারমজার ব্যাপার হল ক্রিস্টোফার নোলান ব্যাটমান চরিত্রে অভিনয়ের জন্য হিথের কাছে যান। কিন্তু সুপার হিরো চরিত্র তার অপছন্দ বলে মানা করেন। কিন্তু ব্যাটম্যান বিগিন্স তার এত ভালো লেগে যায় যে নিজেই জোকারের চরিত্রটা চেয়ে নেন। দিনরাত এই চরিত্রের পিছনে লেগে থাকলেন৷ সিনেমার ছোট খাটো জায়গা গুলো নিজেই ইম্প্রোভাইজ করলেন যেমন রিমোট খারাপ হওয়া, জেলে হাত তালি দেওয়া।হিথ লেজার ১৯৭৯ থেকে ২০০৮২০০৮ এই মৃত্যু হল তার। প্রথম কমিক বুক চরিত্র হিসাবে অস্কার হাতিয়ে নেন। কিন্তু নিজে আসতে পারেননি। চলে গিয়েছিলেন অন্য জগতে। তার মৃত্যু রহস্যময়৷ বলা হয় ড্রাগসেবনের জন্য মৃত্যু হয়েছে। আবার কেউ বলে জোকার তাকে গ্রাস করেছিল। অবসাদে ভুগছিলেন। জোকারের চরিত্রে আগে অভিনয় করা জাক নিকোলসন বলেন, ‘আমি হিথকে বারণ করেছিলাম৷ ‘ তবু তার রহস্যময় মৃত্যুও ঢাকা দিতে পারেনি কিংবদন্তী জোকার চরিত্রকে।