এক যে আছে যিশু…

চরিত্র
 মণিকর্ণিকা: দ্য কুইন অফ ঝাঁসিতে রাজা গঙ্গাধর রাও-এর চরিত্রে আমাদের ঘরের ছেলে, টালিগঞ্জের অন্যতম প্রিয় অভিনেতা যিশু সেনগুপ্ত। সিনেমাতে তার লুক ইতিমধ্যেই মিডিয়াতে সারা ফেলে দিয়েছে। একটি মাত্র ছবিতেই যেন বাঙালি দর্শকের মন আরো কাছে টেনে নিয়েছেন যিশু! তার অভিনয় ক্ষমতা নিয়ে প্রশ্ন তোলে এমন মানুষ টালিগঞ্জে খুব কমই আছে। যেকোনো রকম চরিত্র যে গভীরতার সঙ্গে ফুটিয়ে তোলেন তিনি, তা কনটেম্পোরারি অভিনেতাদের মধ্যে খুব কম জনই পারে।যিশু সেনগুপ্ত মনিকর্ণিকা চরিত্র তবে সবসময় বোধহয় গল্পটা এরকম ছিল না। গৌরাঙ্গ মহাপ্রভুর চরিত্রে ছোট পর্দায় অভিষেক হয় যিশুর। ভীষণ ফরসা রোগা-সোগা এই ছেলেটাকে প্রথম দিকে কেউ সিরিয়াসলি নিতেই পারে নি! বড় বড় হিরোদের মুখের তলায় সাইড রোলের ভারে চাপা পড়ে ছিল এই হিরে, বহুদিন। নায়িকাদের সঙ্গে মানেহীন গানে নাচতে হয়েছে, আর সুপারস্টার টলিউড হিরোদের ভাই বা বন্ধু হয়ে স্যাকরিফাইস করে যেতে হয়েছে। যিশু সেনগুপ্ত নামের সঙ্গে এই চরিত্রের গঠন যেন প্রায় দশ..বারো বছর ধরে চলা ছবিতে হুবহু মিলে যায়! যিশু সেনগুপ্তকিন্তু একটা পরিবর্তন কোথাও গিয়ে খুব দরকার ছিল। তা সে নব্বই-এর দশক শেষ হওয়া বাঙলা ইন্ডাস্ট্রীতেই হোক, বা যিশু সেনগুপ্তের মতো অভিনেতার কেরিয়ারে। আর এই দুই ক্ষেত্রেই যে মানুষটা সবচেয়ে শক্ত হাতে হাল ধরেছিলেন তার নাম নিঃসন্দেহে ঋতুপর্ণ ঘোষ! ঋতুর নৌকাডুবির রমেশ বা চিত্রাঙ্গদার পার্থ না থাকলে বোধহয় যিশু সেনগুপ্তের অভিনেতা জাতটাকে ঠিকঠাক চেনা যেত না। আর একটি প্রেমের গল্পের চ্যালেঞ্জিং রোল বা বর আসবে এখুনির লিড রোল, এই সিনেমা গুলো যেন আস্তে আস্তে যিশু সম্পর্কে পরিচালক আর দর্শকদের ভাবনাগুলো পুরো উলটে দেয়। রোগা-সোগা সেই ছেলেটা যখন জুলফিকারে মধ্যবয়স্ক কাশিনাথের চরিত্র করে। যখন রাজকাহিনীর কবির হয়ে পাশবিক হাসি হাসে তখন মনেই হয় না এই যিশু সেনগুপ্তেরও একটা স্রাগলের গল্প আছে! Jisshu & Rituporno Ghoshআজ গোটা দেশ তার প্রশংসাতে অধির। অনেকটা কৃতিত্ব যায় সুজিত সরকারের ঝুলিতে। পিকুতে যিশুর চরিত্র আজো দর্শকের মনে উজ্জ্বল। এই বছরেই তার এক যে ছিল রাজা রিলিজ করেছে। সৃজিত মুখার্জীর এই ছবি যেমনটাই হোক না কেন, যিশুকে দর্শক ভুলতে পারে নি। যদিও এই প্রথম বার নয়, নির্বাকেও নিজেকে প্রমাণ করে দিয়েছিলেন যিশু সেনগুপ্ত। চরিত্রের গভীরতা ধরে ফেলে অভিনয় করা তাকে হাতে ধরে শিখিয়েছিলেন ঋতুপর্ণ ঘোষ। চিত্রাঙ্গদার সেই ড্রাগ অ্যাডিক্টেড ছেলেটির চরিত্রে যদি তার অভিযানের মাইলফলক বলা হয়, এক যে ছিল রাজা তবে তার পরিপূর্ণ প্রকাশ। যিশু সেনগুপ্তআর মাঝে রয়েছে একঝাঁক উজ্জ্বল চরিত্রের ভীড়। আজ মণিকর্ণিকা: দ্য কুইন অফ ঝাঁসিতে তার লুক দেখে মিডিয়া তোলপাড়। কিন্তু যিশুর মতো অভিনেতারা বোধহয় কোনোদিন থেমে থাকেন না। পিছনের স্রাগল করা দিন গুলো তাদের নতুন করে স্বপ্ন দেখায়, আর আমরা দর্শকরা দেখি গঙ্গাধর রাও-এর চরিত্রে এক আনম্যাচড যিশু সেনগুপ্ত কে। পঁচিশে জানুয়ারি রিলিজ করছে মণিকর্ণিকা। অনেক তর্ক, অনেক সমস্যা পেরিয়ে একেবারে দোরগোড়াতে এসে গেছে হল রিলিজ। আমাদের অধীর অপেক্ষা যিশু সেনগুপ্তকে এক নতুন অবতারে আবার করে দেখার। আবারো তার অভিনয় দেখে বাকরুদ্ধ হয়ে যাওয়ার….যদিও এমন অবাক যে তিনি বার বার দর্শককে করে দেবেন, পরবর্তী কালেও, সে বিষয়ে সন্দেহ নেই!