যে কোন ফর্ম অফ আর্টই ফ্রি’তে করা বন্ধ হোক!

রিলিজ করল ব্যান্ড ‘দ্য মিলিপুটস’ এর নতুন ক্রিয়েশন ‘ব্যোম ভোলেনাথ’। গত বছর দোলের সময় বেশ ভালোই সারা পেয়েছিল তাদের গান। আর এই নতুন মুক্তিপ্রাপ্ত গানটিও ইতিমধ্যেই সাফল্যের পথে। ব্যোম ভোলেনাথ এর বিষয় বস্তু একটু আলাদা। সমজে প্রিতিদিন ঘটে চলা সব অবিচারের বিরুদ্ধে এবার ঘুরে দাঁড়ানোর আবেদন রাখলেন মিলিপুটস এর সদস্যরা। আর তাই গানে উঠে এল শিশু শ্রমিক থেকে শুরু করে ট্রান্সজেন্ডারদের কথা, তাদের প্রতি অন্যায়ের কথা। এই সব কিছু নিয়েই ফোনে কথা হল গানের ভোকালিস্ট সারণী পোদ্দারের সাথে।

ব্যোম ভলেনাথের জন্য এই সাবজেক্টটা বেছে নেওয়ার পিছনে কি মোটিভ ছিল, জানতে চাইলে সারণী জানান,

‘মোটিভ দুটো ছিল। প্রথমত, যেহেতু গানটা শিবকে কেন্দ্র করে, আর শিবকে আমরা এখানে পাওয়ার বা স্ট্রেনথ হিসাবে দেখেছি। প্রত্যেক মানুষের মধ্যেই ভগবান থাকেন, সেই পাওয়ারটাও থাকে। শুধু সেই ব্যপারটাকে রিয়েলাইজ করে সমাজের অন্যায়ের বিরুদ্ধে ঘুরে দাঁড়াতে হবে এটাই বোঝাতে চেয়েছি’।

আর দ্বিতীয় কারণটা কি ছিল? “আর একটা বিষয় আমাদের মাথায় ছিল যেহেতু আমাদের আগের গানটা খুব ভালো রেসপন্স পেয়েছে তার মানে এটাই যে দর্শক আমাদেরকে দেখছেন, আমদের গান শুনছেন। আর লোকজন যখন অ্যক্সেপ্ট করছেন আমাদের তাই আমরা চেয়েছিলাম একটা ইন্সপায়ারিং মেসেজ দিতে”।

‘ব্যোম ভোলেনাথ’ মানুষ আগেও শুনেছেন। অনেকে বলেন এটা বব মার্লি গেয়েছেন, অনেকের আবার অন্য মত। গানটার ওরিজিন নিয়ে তোমাদের কি মত? সারণী বলেন, “২০০২ সালে জয় উত্তাল নামের এক গায়ক তার অ্যলবাম মন্দোরামা তে এই গানটি রেখেছিলেন। সেই গান শুনেই আমরা এটা রিক্রিয়েট করি। কিন্তু বব মার্লির গাওয়া ব্যোম ভোলেনাথের ভারসানটাই বেশি পপুলারিটি পায়”।

এই গানের সুরে একটা অদ্ভূত মাদকটা আছে। আর সেই ফিলটার সাথে এই সাবজেক্টটা লিঙ্ক করার কথা মাথায় এল কি করে? উত্তরে সারণী বললেন, “ব্যান্ড ফর্ম করার সময় থেকেই এই গানটা আমাদের ভীষণ পছন্দের। আর শিব যেহেতু একটা শক্তির উৎস সেই শক্তি যেন সমাজে অন্যায়ের বিরুদ্ধে কাজে লাগে। একজন ট্রান্সজেন্ডার প্রতিদিন কালিমালিপ্ত হচ্ছে। তাই গানে ফার্স্ট সিনে আমরা দেখি তার মুখে কালি ছুঁড়ে দেওয়া হল আর ঠিক তার পরের সিনেই সে কালি মুছে একজন ইন্সপেক্টর টুপি পরল, সমাজের বিরুদ্ধে ঘুরে দাঁড়াল। গানের আরেক দৃশ্যে নো ফ্রি মিউজিক এর বিরুদ্ধেও আমরা প্রতিবাদ জানিয়েছি। যেহেতু আমরা ইন্ডিপিডেন্ট মিউজিক করি, আর শুধু মিউজিক নয় যে কোনও ফর্ম অফ আর্টই ফ্রিতে করা বন্ধ হোক’।

মিলিপুটস এর গান গত বছর খুবই সাফল্য পেয়েছিল। কেমন কাটল পুরো বছরটা? ‘খুবই ভালো কেটেছে। টিভি চ্যনেল থেকে শুরু করে রেডিও অনেক জায়গা থেকেই ডাক পেয়েছি। এছাড়াও অনেক শো করেছি। মানুষ পছন্দ আমাদের চিনছেন, পছন্দ করেছেন, খুব খুশি আমরা’। মিলিপুটস এর নেক্সট প্ল্যান কি জানতে চাইলে সারণীর জবাব ‘নেক্সট রিলিজ নিয়ে এখনও কিছু ভাবিনি। ওল্ড কম্পোজিশন নিয়েই কাজ করছি। আগামী দিনে শো আছে অনেকগুলো’। গানে সারনী ছাড়াও আছেন দেবমাল্য দে, আকাশ দেবনাথ, অরিন্দম রায় ও দেবাঞ্জন দাস। আপনাদের জন্য রইল গানের লিঙ্ক।