সুজয় ঘোষের এই কথাতেই লুকিয়ে আছে সিনেমার সাফল্যের মন্ত্র!

বিগত এক দশকে বাংলা সিনেমায় যে আমুল পরিবর্তন এসেছে তা বেশ চোখে পড়ার মতোই। গত কয়েক বছরেই বাংলা সিনেমার দর্শক পেয়েছেন এমন কিছু বিগ বাজেটের ছবি, যে ছবির কথা এক সময়ে বাংলার মানুষ ভাবতেই পারতেন না। কিন্তু আজকে, স্ক্রিপ্টের চাহিদা অনুযায়ী শ্যুটিং এর জন্য টলিউড পাড়ি দিচ্ছে অ্যামাজনে বা মিশরে কিংবা আফ্রিকার জঙ্গলে। অতএব বাংলা সিনেমার মান যে অনেকটাই বেড়েছে সে বিষয়ে আর কোনও প্রশ্ন না থাকারই কথা। কিন্তু এই সব কিছুর আড়ালে আজও বাজেটের অভাবে রিলিজ করতে পারেনি বা পারছে না এমন সিনেমার সংখ্যা নেহাতই কম নয়। কোথাও হয়তো পাতার পর পাতা স্ক্রিপ্ট রেডি, কিন্তু শ্যুটিং সম্ভব নয় কারণটা আটকে সেই বাজেটে। আবার কোথাও হয়তো বাজেটের অভাবে চলছে কম্প্রোমাইজ। এই একই ইন্ডাস্ট্রিতে খুঁজে দেখলে এমন ঘটনাও দেখা যেতে পারে। আর বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই এরম ঘটনায় সাফার করতে দেখা যায় নিউকামারদের।

সুজয় ঘোষ এর সাম্প্রতিক ট্যুইটে রইল এরমই কিছু আভাস। নিউকামারদের জন্য বেশ ভালো একটা সাজেশন হতে পারে সুজয়ের ট্যুইট করা এই কথা গুলি। তার বক্তব্য আজকাল অনেকের মুখেই শোনা যায় সিনেমা বানাতে চাই কিন্তু টাকা নেই। আর সেখানেই শুরু হয় শিল্পের সাথে কম্প্রোমাইজ। টাকার অভাবে সিনামার মানকে কমিয়ে আনা হয়। কিন্তু সুজয়ের বক্তব্য গাড়ি কিনতে গিয়ে যদি দেখা যায় যে সেটা বাজেটে আসছে না, তাহলে কি শুধু গাড়ির চাকা কিনে নিয়ে চলে আসবে? নাকি টাকাটা জোগাড় করে পুরো গাড়িটাই কিনবে? তেমনই সিনেমা বানানোর টাকা না থাকলে সেটা জোগাড় করে স্ক্রিপ্টের প্রতি প্রপার জাস্টিস হোক, কম্প্রোমাইজ নয়। টাকার জন্য কম্প্রোমাইজ করলে আল্টিমেটলে তাতে সিনেমার মানটাই ক্ষতিগ্রস্থ হয়।