এই মানুষটার জন্য “কবীর”র শুটিং পেছতেও রাজি ছিলেন দেব!

‘ককপিট’ থেকে অবতরণের সবে কয়েক মাস হয়েছে কিন্তু উচ্চতা-প্রেম দেবের পিছু ছাড়ছে না তাই সল্টলেকের নবনির্মিত এক বহুতলের রুফটপে দাঁড়িয়ে বাংলার গোটা সংবাদমাধ্যমকে ডেকে ঘোষণা করলেন একগুচ্ছ প্রকল্পের। যার মধ্যে সুবাসিনী দেবী’কে নিয়ে সিনেমা বানানোর খবরটা ইতিমধ্যেই অনেক মানুষই জেনে গেছেন। এছাড়াও তিনি সামনে নিয়ে এলেন ‘দেব মিউজিক’, যে ব্যানারে ইতিমধ্যেই রিলিজ করে গেছেকবীর’র প্রথম গান (দেখুন নিচে)…একটা সিনেমা ‘ভালো’র তকমা পেতে হলে বেশ কয়েকটা স্তম্ভ লাগে, যার মধ্যে অন্যতম স্তম্ভ হল ডিওপি অর্থাৎ ক্যামেরাম্যান, যার চোখ দিয়ে পরিচালকের নির্দেশে আপনারা দেখতে পান পুরো সিনেমাটা। যে মানুষটি উপরের ছবিতে আছেন তিনি হলেন হরেন্দ্র সিং, যার ডেট পাওয়ার জন্য দেব সিনেমার শুটিং পেছতেও রাজি ছিলেন!

কিন্তু কেন? সেটার জন্য আপনাকে ১৩ই এপ্রিল, সিনেমা রিলিজ অবধি অপেক্ষা করতেই হবে যদিও ওনার ক্যামেরার কাজের ঝলক আপনারা প্রথম গানেই কিছুটা পেয়ে যাবেন। সিনেমা শুট করার আগে হরেন্দ্র জানিয়েছিলেন এই সিনেমাতে একটা ডকুমেন্টরি ফিল দিতে চান, একটা মেন স্ট্রিম বাংলা সিনেমা যেখানে প্রধান চরিত্রে দেব যার হিরোয়িক ইমেজকে সরিয়ে ডকুমেন্টরির মত রিয়্যালেস্টিক শুট করা ভীষণ কঠিন একটা ব্যাপার তার উপর যদি প্রায় ৬০ শতাংশ শট চলন্ত ট্রেনে নিতে হয়! রুক্মিণীর কথায়, “উনি ম্যাজিশিয়ান পুরো!”

পরিচালক অনিকেত চট্টোপাধ্যায় প্রশংসায় ভরিয়ে দিয়েছেন হরেন্দ্রের কাজকে সঙ্গে অবশ্য প্রযোজক দেব’কেও দিলেন দরাজ সার্টিফিকেট, “আমাদের প্রোডিউসার একদম কিপটে নন!” ওদিকে হরেন্দ্রও জানাতে ভুললেন না, ট্রেনের শুটের সময় পা’য়ে চোট পান রুক্মিণী কিন্তু যন্ত্রণা লুকিয়ে প্রায় ৪০ ঘণ্টা শট দিয়ে গেছেন নির্ভুলভাবে! ‘দেব এন্টারটেনমেন্ট ভেঞ্চারস’র প্রধান মুখ দেব পুরনো স্মৃতি হাতড়ে বললেন, ওঁর সাথে প্রথম দেখা হয় অনিরুদ্ধ রায় চৌধুরীর বাড়িতে ‘বুনোহাঁস’র শুটিং এর ঠিক আগে, এখনো মনে আছে সেই রাতে আমরা দুজন ঝগড়াই করেছিলাম কিন্তু কাজ শুরু হওয়ার পর বুঝতে পারলাম এই মানুষটার ডেডিকেশন কোন লেভেলের!

প্রসঙ্গত ‘বুনোহাঁস’ এও ক্যামেরা সামলেছিলেন হরেন্দ্র। টিজার, গানের পর এবার পালা ট্রেলার রিলিজের যার জন্য শুধু দেব-ভক্তরা নয় অপেক্ষা করে আছে বাংলার সমস্ত সিনেপ্রেমীরা, শোনা যাচ্ছে ২০ বা ২১ তারিখ নাগাদ আসতে চলেছে ‘কবীর’র বহু প্রতীক্ষিত ট্রেলার তার আগে আপনারা শুনে নিন ইন্দ্রদীপ দাসগুপ্ত’র সুরে ‘তেরে দরগা পে’, শুনুন এবং জানান আমাদের কেমন লাগলো ‘কবীর’র প্রথম গান এবং অবশ্যই চোখ রাখুন গুলগালে দেবের এই ড্রিম প্রোজেক্ট নিয়ে আরও অনেক গল্প জানতে…